মঈন উদ্দীন বাপ্পী । হিলরিপোর্ট

রাঙামাটি: বৈর্শ্বিক করোনায় পুরো পৃথিবী নাকাল। নাকাল হয়েছে বাংলাদেশও। দেশের অর্থনৈতিক চাকা ঘুরছে না। ধ্বস নেমেছে ব্যবসায়ীক খাতে। চরম বিপর্যয়ে দিন কাটাচ্ছে সমাজের অসহায় খেটে খাওয়া মানুষেরা। এক মুঠো খাবারের আশায় এক দুয়ার, দুই দুয়ার ঘুরাঘুরি করছে তারা।

আর সমাজের এসব অসহায় মানুষের জন্য সরকার ছাড়া সমাজের স্বাবলম্বী উল্লেখযোগ্য কোন মানুষকে তেমন সাহায্য করতে দেখা যাচ্ছে না। যেসব স্বাবলম্বী মানুষ সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন তাদের সংখ্যা অতি নগণ্য। আর এই নগন্য সংখ্যার মধ্যে রাঙামাটি পৌরসভার প্যানেল মেয়র ও ৭নং ওয়ার্ড কমিশনার মো. জামাল উদ্দীন এবং তার পরিবার অন্যতম।

দেশের এই দুর্দিনে তাদের পরিবারটি সমাজের খেটে খাওয়া মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে অবিরাম। চেষ্টা করছেন তাদের শেষ সামর্থ্যটুকু দিয়ে মানুষের জন্য কিছু করার।

তাদের এমন মহতি উদ্যােগের কার্যক্রমের অংশ হিসেবে রোববার (২৪মে) সকালে কাঠালতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে প্রায় ৩০০জন অসহায় মানুষের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করেছে। কার্যক্রমটি উদ্বোধন করেন, রাঙামাটি আসনের সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার। এসময় তাদের স্বজনরা উপস্থিত ছিলেন। ঈদ উপহার সামগ্রীর মধ্যে ছিলো- চাল, সেমাই, চিনি, গুড়ো দুধ, এবং নুডুলস।

কার্যক্রমটির উদ্যোক্তা ব্যবসায়ীক নেতা আবু সৈয়দ বলেন, আল্লাহর সন্তষ্টির আশায় নিজের বিবেকের তারণা খেকে এই কার্যক্রমটি করেছি। কে কি বলবে বা কে কি বললো তা নিয়ে আমার কোন কর্ণপাত নেই। এর আগে আমি ব্যক্তি উদ্যােগে সমাজের খেটে খাওয়া ৫০০জন মানুষকে ত্রাণ সামগ্রী প্রদান করেছি। আজ আমাদের পরিবারের পক্ষ থেকে ৩০০জন মানুষকে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করেছি।

রাঙামাটির প্যানেল মেয়র ও ৭নং ওয়ার্ডের কমিশনার মো. জামাল উদ্দীন বলেন, দেশের এই দুর্যোগকালীন সময়ে সরকারের পাশপাশি আমাদেরও নৈতিক দায়িত্ব রয়েছে অসহায় মানুষের জন্য কিছু করার। বিবেকের দায়িত্ব থেকে মূলত আমাদের পরিবারের পক্ষ থেকে এই মহতি উদ্যোগ হাতে নিয়েছি।

এর আগেও প্যানেল মেয়র জামাল উদ্দীন ব্যক্তি উদ্যোগে মসজিদে মসজিদে মুসল্লীদের মাঝে জায়নামাজ বিতরণ, ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছিলো।