॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥

বাংলাদেশের সংবিধান পরিপন্থি ও সরকারের জারিকৃত প্রজ্ঞাপন অবজ্ঞা করে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী কর্তৃক রাষ্ট্র বিরোধী গভীর ষড়যন্ত্রের লক্ষে তথাকথিত আদিবাসী দিবস পালনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান বাঙালী ছাত্র পরিষদ।

বৃহস্পতিবার (৯আগষ্ট) সন্ধ্যায় গণ মাধ্যমে পাঠানো সংগঠনটির রাঙামাটি জেলা শাখার সভাপতি মো. জাহাঙ্গীর আলম স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জাহাঙ্গীর বলেন, বাঙালীরাই বাংলাদেশের আদিবাসী। বাংলাদেশের মহান সংবিধানের অনুচ্ছেদ ৬(২) এ স্পষ্ট ভাবে বলা হয়েছে যে, বাংলাদেশের জনগণ জাতি হিসাবে বাঙালী এবং নাগরিকগণ বাংলাদেশী বলিয়া পরিচিত হইবেন এবং অনুচ্ছেদ ২৩(ক): রাষ্ট্র বিভিন্ন উপজাতি, ক্ষুদ্র জাতিসত্তা, নৃ-গোষ্ঠী ও সম্প্রদায়ের অনন্য বৈশিষ্ট্যপূর্ণ আঞ্চলিক সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্য সংরক্ষণ,উন্নয়ন ও বিকাশের ব্যবস্থ্যা গ্রহণ করিবেন।

অন্যদিকে সরকার স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছেন, বাংলাদেশের উপজাতিরা কখনো আাদিবাসী হতে পারে না। উপজাতীয়রা আদিবাসী ইস্যুটি আমাদের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের উপর আঘাতকারী এবং দেশ ভাগের গভীর ষড়যন্ত্র।

বাংলাদেশের নাগরিকত্ব গ্রহণ করে সকল প্রকার সুযোগ সুবিধা ভোগ করার পরেও দেশের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী সরকারের নির্দেশনা না মেনে উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবে তথাকথিত আদিবাসি দিবসের নামে রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকান্ডে লিপ্ত রয়েছে। এটা একটা স্বাধীন রাষ্ট্রের জন্য মোটেও মঙ্গলজনক নয়।

বিদেশী কয়েকটি রাষ্ট্র ও এনজিও সংস্থার মাধ্যমে প্ররোচিত হয়ে এখানকার এক শ্রেণীর মানুষ দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে।

তাই সরকারের নির্দেশনাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করে পার্বত্য চট্টগ্রামে একটি অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করার মানসে বিতর্কিত আদিবাসি দিবস পালন করছে।

প্রশাসন দেশ বিরোধী আদিবাসী দিবস পালনের অনুমতি দিয়ে দেশ ও সংবিধানের সাথে বিশ্বাস ঘাতকতা করেছে। পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদ এসব দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানাচ্ছে বলে জানান তিনি।

অন্যথায় পার্বত্য চট্টগ্রামের বাঙ্গালীরা দেশ রক্ষার্থে এসব দেশদ্রোহীদের বিরুদ্ধে কঠিন আন্দোলন গড়ে তুলবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করেন।