এস চৌধুরী । উপজেলা প্রতিনিধি । হিলরিপোর্ট

কাপ্তাই: চলতি বোরো মৌসুমে রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলায় বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশী ধান উৎপাদন হওয়ায় কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে। ফলে ব্যস্ততা বেড়েছে কৃষাণ-কৃষাণীর। জানা যায়, কাপ্তাই উপজেলা রাইখালী এবং চিৎমরম ইউনিয়নে সবচেয়ে বেশী ধানের ফলন হয়েছে।

কাপ্তাই উপজেলার রাইখালী ইউনিয়নের রিফিউজি পাড়া, বড়খোলা পাড়ায় সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ধানের ব্যাপক সমারোহে ভরপুর সবুজ প্রান্তর। জমিতে জমিতে ধানের গন্ধে মৌ মৌ করছে চারপাশ। কৃষাণ -কৃষাণী ব্যস্ত ধান কাটায়। তবে এই বছর করোনা ভাইরাসের প্রার্দুভাবে অনেক কৃষক ধান কাটার শ্রমিক সংকটে ভুগছেন বলে জানান। তবে ইতিমধ্যে কাপ্তাই উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের পক্ষ হতে রাইখালী ইউনিয়নের ডংনালায় কৃষকের ধান কেটে নেতাকর্মীরা ঘরে তুলে দিয়েছেন।

কাপ্তাই উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সামসুল আলম চৌধুরী জানান, এই বছর কাপ্তাই উপজেলার ৫টি ইউনিয়নের প্রায় ২৮০ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের ব্যাপক ফলন হয়েছে। যার মধ্যে উফসী জাতের ব্রিধান-২৮ ১৮২ হেক্টর, ব্রিধান-২৯ ৫০ হেক্টর, ব্রিধান-৫৮ ১০ হেক্টর, ব্রিধান-৭১ ১০ হেক্টর, হাইব্রিড জাতের হিরা ১০ হেক্টর,সেরা ৫ হেক্টর, নবি ৬ হেক্টর ও টিয়া ৭ হেক্টর সহ সর্বোমোট ২৮০ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের ফলন হয়েছে। এই বছরের কৃষি বিভাগের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১০৬০ মেট্রিকটন। তবে এই লক্ষ্যমাত্রা ছেড়ে যেতে পারে বলে কৃষি বিভাগ জানিয়েছেন।

ইতিমধ্যে উপজেলার প্রত্যেকটি ইউনিয়নে ধান কাটার শুরু হয়ে গেছে। এইবার ধানের ব্যাপক ফলন হওয়ায় কৃষকেরা আশানুরূপ ফলন গোলায় তুলতে পারবে বলে মাঠ পর্যায়ের উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা বাপ্পা মল্লিক আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।