॥ খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি ॥

পার্বত্য চট্টগ্রামের সংরক্ষিত নারী আসনের সাংসদ বাসন্তি চাকমাকে সংসদ সদস্য পদ থেকে অপসারণের দাবীতে খাগড়াছড়ি জেলার রামগড়ে আবারো বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশ, মানববন্ধন ও প্রধানমন্ত্র্রী বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করেছে সর্বস্তরের জনতা।

বুধবার (৬মার্চ) সকালে সচেতন রামগড়বাসীর ব্যানারে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে সংসদে দেয়া বাসন্তি চাকমার বক্তব্য প্রত্যাহার ও ক্ষমা চাওয়ার দাবী জানানো হয়।

মানববন্ধন আওয়ামী লীগ,যুবলীগ ছাত্রলীগ, বাঙালি ছাত্র পরিষদ, নাগরিক পরিষদ, অধিকার ফোরামসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার হাজারো মানুষ অংশ নেন। পরে বাসন্তি চাকমার কুশপুত্তলিকায় অগ্নিসংযোগ করা হয়।

রামগড় হাই প্লাজার সামনে অনুষ্ঠিত সভায় রামগড় পৌরসভার মেয়র কাজী মো:শাহজাহান রিপন, রামগড় পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রফিকুল আলম কামাল, যুবলীগের সভাপতি ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের, পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি আব্দুল মজিদ, বাঙালি ছাত্র পরিষদের নেতা মো: জালাল, রবিউল হোসেন, ঈমাম কাউছার হোসেন, রামগড় সভাপতি মো: সাইফুল ইসলাম, পার্বত্য অধিকার ফোরাম মাটিরাঙ্গা আহবায়ক ওসমাান চিশতি, রামগড় শাখার আহবায়ক মোঃ ইউনুুছ, কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মোক্তাদির হোসেন ও মাইন উদ্দিন বক্তব্য রাখেন।

সংসদ সদস্য পদ থেকে অপসারণের দাবিতে দীঘিনালায় বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে, পার্বত্য অধিকার ফোরাম। বুধবার সকালে এ উপলক্ষে উপজেলা লারমা স্কোয়ার থেকে একটি বিক্ষোভ বের হয়।

বিক্ষোভ মিছিলটি উপজেলার থানা বাজার প্রদক্ষিণ করে বঙ্গবন্ধু চত্বরে এসে মানববন্ধন কর্মসূচিতে মিলিত হয়।এক ঘন্টার মানববন্ধন কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন আওয়ামীলীগ নেতা আবুল কালাম, পার্বত্য অধিকার ফোরামের কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক মোঃ সাদ্দাম হোসন, বাঙালি  ছাত্র পরিষদের সভাপতি মোঃ আল আমিন, সাধারণ সম্পাদক মোঃ পারভেজ, ছাত্রনেতা জাহেদুল আলম এবং প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা আওয়ামীলীগ থেকে বহিস্কারের মাধ্যমে সংসদ সদস্য পদ থেকে অপসারণের দাবি করা হয়।

প্রসঙ্গত: গত ২৬ ফেব্রুয়ারি জাতীয় সংসদে নির্ধারিত বক্তব্য প্রদানকালে দেশদ্রোহী শান্তিবাহিনীকে নিজের ভাই উল্লেখ করে ও দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনী ও বাঙ্গালিদের বহিরাগত উল্লেখ করে মিথ্যাচার করেন সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য বাসন্তী চাকমা।