॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥

রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলায় কর্ণফুলী নদীতে বোটডুবির ঘটনার ৪দিন পর মা টুম্পা মজুমমার এবং ছেলে বিজয় মজুমদারের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (১৮ফেব্রুয়ারী) সকালে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার পূর্ব সড়ক ভাটার মরাখাল এলাকার কর্ণফুলী নদী থেকে মরদেহ দু’টি উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সকালে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার পূর্ব সড়ক ভাটার মরাখাল এলাকার কর্ণফুলী নদীতে দু’টি মরদেহ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে মরদেহগুলো উদ্ধার করে রাঙ্গুনিয়া থানায় নিয়ে যায়।

রাঙ্গুনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাইফুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মরদেহগুলো থানায় রাখা হয়েছে এবং তাদের স্বজনদের খবর দেওয়া হয়েছে। তারা আসলে মরদেহগুলো তাদের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

এর আগে গত ১৪ ফেব্রুয়ারী শুক্রবার সকালে চট্টগ্রামের নন্দনকানন এলাকার রাধামাধব মন্দির থেকে প্রায় ১২৭ জনের একদল ইসকন ধর্মালম্বী রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলায় বিভিন্ন মন্দির ভ্রমনে আসে। এরপর দলটি উপজেলার শীলছড়ি মন্দির পরিদর্শনের জন্য তিনটি বোট ভাড়া করে মন্দিরের উদ্দেশ্যে যাত্রা করে। এর মধ্যে ২টি বোট যথাযথ স্থানে পৌছলে হঠাৎ করে একটি বোট উল্টে গেলে বোটে থাকা ৪৭জন যাত্রী নদীতে ডুবে যায়। ডুবে যাওয়াদের মধ্যে অনেকে সাতার কেটে উপরে উঠতে পারলেও মা-ছেলেসহ তিনজন নিখোঁজ হয়েছে। নিখোঁজদের মধ্যে ঘটনার কিছুঘন্টা পর টুম্পা মজুমদার (১০) নামের একজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।