স্টাফ রিপোর্টার । হিলরিপোর্ট

রাঙামাটি: বাংলাদেশ সরকারের মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী শ. ম. রেজাউল করিম এমপি বলেছেন, কাপ্তাই হ্রদে মৎস্য উৎপাদন দ্বিগুণ হারে বৃদ্ধি করা হবে। শনিবার (৩১অক্টোবর) দুপুরে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইন্সটিটিউট, নদী উপকেন্দ্র রাঙামাটি শাখা অফিসে মৎস্য কর্মকর্তাদের সাথে অভ্যন্তরীণ আলোচনা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী আরও বলেন, কাপ্তাই হ্রদে এ বছর লক্ষ্য মাত্রার চেয়ে মৎস্য উৎপাদন বেশি হয়েছে। ভবিষ্যতে এ উৎপাদন যাতে আরো বেশি বৃদ্ধি করা যায় সে ব্যাপারে নির্দিষ্ট কিছু পরিকল্পনা হাতে নেওয়া হয়েছে।

মন্ত্রী জানান, কাপ্তাই হ্রদ শুধু পাহাড়ি জেলা রাঙামাটির সম্পদ নয়। এটা পুরো দেশের গুরুত্বপূর্ণ সম্পদ। এর রক্ষণাবেক্ষণ, দূষণ রোধ এবং দখল-দারিত্ব সব ব্যাপারে অবগত আছি। যত দ্রুত সম্ভব, হ্রদটিকে জঞ্জাল মুক্ত করা হবে। কারণ হ্রদটির উপর হাজার-হাজার জেলে সম্প্রদায়, মৎস্য ব্যবসায়ীরা নির্ভরশীল। পুরো জেলার অর্থনৈতিক মূল চালিকা শক্তি হলো কাপ্তাই হ্রদ। সরকার প্রতিবছর এ হ্রদের মৎস্য আহরণ থেকে কোটি টাকার রাজস্ব আদায় করে। তাই হ্রদ রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখা হবে বলে মন্ত্রী যোগ করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রনালয়ের সচিব রওননক মাহমুদ, প্রাণি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের অতিরিক্ত সচিব তৌফিকুল আরিফ, মৎস্য অধিদপ্তরের মহা পরিচালক কাজী শামস আফরোজ,বাংলাদেশ মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশন’র চেয়ারম্যান কাজী হাসান মাহমুদ, বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইন্সটিটিউট এর মহাপরিচালক ড. ইয়াহিয়া মাহমুদ, জেলা প্রশাসক এ কে এম মামুনুর রশীদ, রাঙামাটি বিএফডিসি ব্যবস্থাপক লে. কমান্ডার তৌহিদুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তাপস রঞ্জন ঘোষ, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শহীদুজ্জামান মহসিন রোমান।

এর আগে মন্ত্রী সকালে রাঙামাটিতে আগমন করলে তাকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে গার্ড অব অর্নার প্রদান করা হয়। এরপরই মন্ত্রী বিএফডিসি রাঙামাটি শাখা ও বিএফআরআই রাঙামাটি শাখা অধিদপ্তরগুলোর কার্যক্রম পরিদর্শন করেন।