॥ মঈন উদ্দীন বাপ্পী ॥

মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রইসুল আলম মন্ডল বলেছেন, কাপ্তাই হ্রদ, হ্রদের মৎস্য দেশের সম্পদ। এ সম্পদকে রক্ষা করা আমাদের সকলের দায়িত্ব।

শনিবার (১৯মে) সকালে বাংলাদেশ মৎস্য উন্নয়ন করপোরেশন (বিএফডিসি) রাঙামাটি শাখার আয়োজনে কাপ্তাই হ্রদে কার্প জাতীয় মাছের পোনা অবমুক্তকরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

সচিব আরও বলেন, কাপ্তাই হ্রদে মৎস্য শিকার বন্ধকালীন সময়ে যাতে কোন অসাধু চক্র মাছ শিকার করতে না পারে এ ব্যাপারে প্রশাসনের পাশাপাশি, মৎস্য ব্যবসায়ীসহ সকলের প্রতি অনুরোধ করেন।

সচিব জানান, বিএফডিসি’র জন্য বাজেট সীমিত। সীমিত বাজেট এবং কম সংখ্যক লোকবল দিয়ে প্রতিষ্ঠানটি যে কার্যক্রম চালাচ্ছে সত্যিই প্রশংসার দাবিদার। বিএফডিসি’র জন্য এবারে বাজেট বাড়াতে সরকারকে অবহিত করা হবে বলে সচিব যোগ করেন।

সচিব সংশ্লিষ্ট কর্তপক্ষসহ ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্য বলেন, কাপ্তাই হ্রদে কেউ বল প্রয়োগ করে দখল না করে। এছাড়া এখানকার প্রধান সমস্যা হ্রদের পাশ্ববর্তী বসবাসকারীরা হ্রদের জায়গা দখল করে ভরাট করে ঘর নির্মাণ করছে। এভাবে হলে একদিকে যেমন নৌ চলাচল বন্ধ হয়ে যাবে অন্যদিকে দেশের সম্পদটি হারিয়ে যাবে। কারণ এ অঞ্চলের প্রায় সাত লক্ষ মানুষ কাঠ, মাছ এবং বাশঁ ব্যবসার উপর নির্ভরশীল। এ ব্যবসাগুলো কাপ্তাই হ্রদকে ঘিরে আবর্ত হয়েছে।

সচিব আরও বলেন, এখানে একটি ল্যান্ডিং ঘাট তৈরি করতে হবে। তাহলে রাজস্বের পরিমাণ আরও বাড়বে।

রাঙামাটি জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশীদের সভাপতিত্বে এসময় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশন’র (বিএফডিসি) চেয়ারম্যান দিলদার আহমদ, ডিজিএফআই রাঙামাটি শাখার অধিনায়ক কর্ণেল সামসুল আলম।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, বিএফডিসি রাঙামাটি শাখার ব্যবস্থাপক কমান্ডার (নৌবাহিনী) আসাদুজ্জামান।

  • Facebook
  • Twitter
  • Print Friendly

বিএফপিসি সূত্রে জানানো হয়- শনিবার কাপ্তাই হ্রদে ১মেট্রিক টনের মতো কার্পজাতীয় মাছের পোনা অবমুক্ত করা হয়েছে। পরবর্তী ১৫দিন ডিসি বাংলো এলাকা, লংগদু ঘাটসহ হ্রদের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পর্যায়ক্রমে বাকী ২১মেট্রিক পোনা অবমুক্ত করা হবে।

এদিকে হ্রদে মাছ শিকার বন্ধকালীন সময়ে অবৈধ শিকারীরা হ্রদের বিভিন্ন স্থানে কারেন্ট জালের মাধ্যমে মৎস্য শিকার করেছে। বিএফডিসি তাদের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে প্রায় ৫০হাজার ফুট কারেন্টে জাল উদ্ধার করে। অনুষ্ঠানে আগত অতিথিরা হ্রদে পোনা অবমুক্তকরণ শেষে জালে আগুন দিয়ে কারেন্ট জাল ধ্বংস করে।