॥ খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি ॥

খাগড়াছড়ি জেলা শহরের মেহেদীবাগ এলাকায় পারিবারিক কলহের জেরে স্ত্রীকে বাড়ির উঠানে ফেলে নির্মমভাবে নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে বুধবার দুপুরে পাষ- স্বামীকে আটক করে পুলিশ।
স্থানীয়রা জানায়, দ্বিতীয় চেঙ্গী ব্রীজ এলাকার ফয়েজ মাঝির ছেলে অটোরিক্সা চালক মাসুদ প্রায় সময় তার স্ত্রীকে মারধর করে।
বুধবার (২মে) সকালেও মারধর করার সময় স্ত্রী রোকেয়া আক্তারের চিৎকার শুনতে পায়। কিন্তু মাসুদের দুর্ব্যবহারের ভয়ে কেউ রোকেয়াকে উদ্ধারে এগিয়ে আসেনি।।

ভিকটিম রোকেয়া আক্তার বলেন, প্রায় সময় তাকে মারধর করার ঘটনাটি সত্য। কিন্তু সে স্বামীর সংসারেই থাকবে। কারণ, দুইটি বাচ্চা নিয়ে তার যাওয়ার কোন জায়গা নেই। পাঁচ বছর আগে পারিবারিক সম্মতিতে নোয়াখালীর জামালপুর গ্রামের মৃত সালেহ আহদের মেয়ের সাথে বিয়ে হয় মাসুদের। বিয়ের পর থেকে প্রায় তুচ্ছ ঘটনায় তাকে মারধর করে। তার বাবা না থাকায় স্বামীর সংসার ছেড়ে কোথাও যাওয়ার জায়গা নেই তার।

খাগড়াছড়ি সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাহাদাত হোসেন টিটো বলেন, এক নারীর ওপর বর্বর এক হামলার ভিডিও ফেসবুকে দেখার পর স্থানীয়দের তথ্যের ভিত্তিতে মাসুদকে আটক করা হয়েছে। কেন সে স্ত্রী মারধর করেছে সে বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।