॥ খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি॥

খাগড়াছড়ির গুইমারায় আগুন দিয়ে গৃহবধূ সালমা হত্যাকান্ডের দায়ে অভিযুক্ত স্বামী মিজানুর রহমানকে মৃত্যুদ- দিয়েছে আদালত। সোমবার (১৫অক্টোবর) বেলা সাড়ে ১২টায় খাগড়াছড়ির নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ ইসমাইল এ আদেশ দেন।

রায় ঘোষণার সময় আদালতে মৃত্যুদ-প্রাপ্ত মিজানুর রহমান সহ মামলার অন্যান্য আসামীরা উপস্থিত ছিলেন। মৃত্যুর আগে নিহত সালমার জবানবন্দী ও সাক্ষীদের সাক্ষ্যের ভিত্তিতে আদালত অভিযুক্ত স্বামী মিজানুর রহমানকে দোষী সাব্যস্ত করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ ও ২০০৩ এর ১১ এর(ক) ধারায় মৃত্যুদ- ও ৫০ হাজার টাকার অর্থদ-ে দ-িত করে এবং অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় অন্য ৪ আসামীকে খালাস দেয়।

মামলার রায়ে নিহতের পরিবার ন্যায় বিচার পেয়েছে বলে জানিয়েছেন সালমার ভাই মামলার বাদি মো: নুরুজ্জামান। ২০১৪ সালের ২৭ ডিসেম্বর খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজেলার সিন্দুকছড়ি এলাকায় যৌতুকের দাবীতে মোঃ মিজানুর রহমান তার স্ত্রী মো সালমা আক্তার (২০)কে ঘরের সামনে পেট্র্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে তার শরীর আশি ভাগ পুড়ে যায়।

ঘটনার প্রায় ৫মাস পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় সালমার মৃত্যু হয়। এই ঘটনায় নিহত সালমার বড় ভাই মোঃ নুরুজ্জামান বাদী হয়ে গুইমারা থানায় মামলা করেন। ১ জুলাই পুলিশ সালমার স্বামী, শ্বশুর, শ্বাশুরী, দেবরসহ ৫জনকে আসামী করে চার্জশীট দাখিল করেন। মামলা চলাকালীন রাষ্ট্রপক্ষ ৬জনের স্বাক্ষ্য শেষে প্রায় ৪ বছরের মাথায় আদালত এই রায় ঘোষনা করেন।