॥ খাগড়াছড়িপ্রতিনিধি ॥

এ,পি ব্যাটালিয়ন হাইস্কুলের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকেরা রোববার (২২জুলাই) দুর্নীতির বিরূদ্ধে অবস্থান নেওয়ার শপথ নিয়েছেন।

শিক্ষার্থীদের মাঝে দুর্নীতি বিরোধী মনোভাব গড়ে তোলা এবং সততার চর্চা অব্যাহত রাখার জন্য খাগড়াছড়ি জেলা দুর্নীতিপ্রতিরোধ কমিটি কর্তৃক আয়োজিত”সততা স্টোর” চালু উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনাসভা শেষে ওইদিন দুপুরে এই শপথ নেন শতাধিকছাত্রছাত্রী ও শিক্ষক ও শিক্ষিকা।

খাগড়াছড়ি জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সদস্য মোঃ রবিউল ইসলাম শপথ বাক্য পাঠ করান।

এর আগে এ,পি, ব্যাটালিয়ন হাইস্কুলের সম্মেলন কক্ষে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন খাগড়াছড়ি পৌরসভার মেয়র মোঃ রফিকুল আলম।

সভায় উপ-পরিচালক, স্থানীয় সরকার এটিএম কাউছার হোসেন উদ্ভোধক হিসেবে এবং অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এম এম সালাহ উদ্দিন, জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি সুদর্শন দত্ত, দুর্নীতি দমন কমিশনের সহকারী পরিচালক আবুল বাশার, এ,পি ব্যাটালিয়ন হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ ইলিয়াছ হোসেন, এ, পি, ব্যাটালিয়ন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধানশিক্ষক বিতান বড়–য়া, দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সহ-সভাপতি দুলাল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট জসিম উদ্দিন মজুমদার, সদস্য মোঃ রবিউল ইসলাম, স্কুলের সহকারী প্রধাণ শিক্ষক মোঃ আলম শাহসহ অনেকে বক্তব্য রাখেন।

স্থানীয় সরকার এর উপ-পরিচালক ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক এটিএম কাউছার হোসেন বলেন ছাত্র/ছাত্রীদের মাঝে নৈতিকমূল্যবোধ ছড়িয়ে দিয়ে সততার চর্চা অব্যাহত রাখতে হবে। এই ধারা অব্যাহত রাখতে ইতিমধ্যে দুর্নীতি দমন কমিশন খাগড়াছড়ি সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়, কে আই হাই স্কুল, খাগড়াছড়ি সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে সততা স্টোর চালু করেছে, যা প্রশংসার দাবী রাখে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এম এম সালাহ উদ্দিন বলেন ছাত্রজীবন থেকে নিজেদের প্রতি, অভিভাবকদেও প্রতি, সমাজের প্রতি, রাষ্ট্রের প্রতি, রাষ্ট্রের জনগণের প্রতি সৎ হতে হবে। নিজেকে ভবিষ্যতে সফল ব্যক্তি হিসেবে দেখতে হলে সততার বিকল্প নেই।

মেয়র মোঃ রফিকুল আলম বলেন, দুর্নীতি দমন কমিশন দুর্নীতি বন্ধ করার লক্ষ্যে বিদ্যালয় পর্যায়ে আলোচনা সভা, সততা সংঘ গঠন এবং সততা স্টোর চালুকরা অব্যাহত রেখেছে। যেহেতু ছাত্রছাত্রীরা আমাদেও ভবিষ্যত প্রজন্ম, সেহেতু এখন থেকে তাদেরকে নিষ্ঠার সাথে বড় হতে হবে। ভবিষ্যতে দুর্নীতিমুক্ত সমাজ ও রাষ্ট্র বিনির্মানে ছাত্রছাত্রীদের মনোযোগ দিয়ে পড়া লেখার আহবানও জানান তিনি।