॥ খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি ॥

খাগড়াছড়ির বিভিন্ন উপজেলায়র আ’লীগের কার্যালয়ের সামনে পরিকল্পিত বোমাবাজি করে বিএনপির নেতাকর্মী জড়িয়ে হয়রানীসহ জেলার সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে প্রেস ব্রিফিং করেছে খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপি। শুক্রবার (২নভেম্বর) বেলা ১১ টার দিকে জেলা বিএনপির কার্যালয়ে এ ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়।

এতে সভাপতিত্ব করেন, খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির সিনি: সহ-সভাপতি প্রবীণ চন্দ্র চাকমা। বিএনপি অভিযোগ করেন, আওয়ামীলীগের লোকজন আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে পরিকল্পিত ভাবে বোমাবাজি করে বিএনপির নেতাকর্মীদের হয়রানি করছে।

বিএনপি শান্তি চায় মন্তব্য করে নেতৃবৃন্দরা অভিযোগ করেন, পুলিশ তদন্ত না করে মনগড়া ভাবে মামলা করে বিএনপি নেতাকর্মীদের এলাকা ছাড়া করার পায়তারা করছে। খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ের সংলগ্ন এলাকায় সিসি ক্যামেরা থাকলেও তার বিষয়ে পুলিশী তদন্ত নিয়েও প্রশ্ন তুলেন নেতৃবৃন্দরা। এ সময় বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে করা মামলায়ও বিভিন্ন অসংগতির কথা তুলে ধরেন নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান বিএনপি নেতারা।

পুলিশ প্রশাসনকে প্রভাবিত না হয়ে বোমা হামলায় জড়িতদের খুজে বের করে আইনের আওতায় আনার দাবী জানিয়ে বলেন, অন্যথায় খাগড়াছড়িতে সাধারণ মানুষকে সাথে নিয়ে কঠোর কর্মসূচী দিবে বিএনপি। আর আন্দোলনের মূখে যে কোন ধরণের অপ্রীতিকর পরিস্থিতির জন্য প্রশাসন দায়ী থাকবে বলে নেতৃবৃন্দরা হুশিয়ারী জানান। এ ঘটনার জন্য আওয়ামীলীগের কোন্দলের বিষয়টি ইঙ্গিত করেন বিএনপি নেতারা।

এ সময় বক্তব্য রাখেন, খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আবু ইউছুপ চৌধুরী,সহ-সভাপতি ক্ষেত্র মোহন রোয়াজা,যুগ্ম সম্পাদক এড. মালেক মিন্টু,সাংগঠনিক সম্পাদক এমএন আফসার,আ: রব রাজা,জেলা যুবদল সভাপতি মাহবুবুল আলম সবুজ,জেলা মহিলা দল সম্পাদিকা কুহেলী দেওয়ান,জেলা ছাত্রদল সাধারণ সম্পাদক মো: জাহেদুল আলম প্রমূখ।

প্রসঙ্গত: গত ২৮ অক্টোবর সন্ধ্যা থেকে রাত সাড়ে ৯টার মধ্যে খাগড়াছড়ি ও মানিকছড়ি উপজেলায় আওয়ামীলীগ অফিসের সামনে পেট্রোল ও ককটেল বোমা বিস্ফোরণ ঘটনায় দুবৃত্তরা। এ ঘটনার পর বৃহস্পতিবার রাতে মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে সামনে পেট্রোল ও ককটেল বোমার বিস্ফোরণ ঘটলে ২ কর্মী আহত হয়। এ সব ঘটনায় মানিকছড়ি ও খাগড়াছড়ি থানায় পৃথক দুটি পৃথক মামলা করা হয়। মামলার পর ৩ বিএনপি নেতাকর্মী আটক করে পুলিশ।