॥ খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি ॥

খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের কার্যালয়ের সামনে রোববার রাতে ৩টি ককটেল বোমা নিক্ষেপ করেছে দুর্বৃত্তরা। এর আগে মানিকছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ের অফিসের সামনে ৩টি পেট্রোল বোমা নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে।

এতে কেউ আহত না হলেও আতঙ্ক দেখা দেয় জনমনে। খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের কার্যালয়ের ভেতর জেলা আওয়ামীলীগের শিক্ষা ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক দিদারুল আলম দিদারসহ প্রায় ৫০ জন নেতাকর্মী বসে আসন্ন সংসদ নির্বাচন আলোচনা করছিলেন। এ সময় হঠাৎ বিকট শব্দে প্রকম্পিত হয়ে উঠে জেলা আওয়ামীলীগের কার্যালয়সহ আশপাশের এলাকা। এ সময় ১টি ককটেল বিষ্ফোরিত হলেও আরো দুটি ককটেল রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখা যায়।

এক পর্যায়ে নেতাকর্মীদের নিয়ে কার্যালয় থেকে বের হয়ে পুলিশে খবর দেয় দিদারুল আলম দিদার। তাৎক্ষণিক খাগড়াছড়ি সদর থানার ওসি শাহাদাত হোসেন টিটোসহ পুলিশ কর্মকর্তারা এসে ২টি ককটেল উদ্ধার করে বিস্ফোরিত ককটেলের আলামত সংগ্রহ করে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে খাগড়াছড়ি সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মো: শাহাদাত হোসেন টিটো বলেন, পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে ২টি ককটেল উদ্ধার করেছে। সে সাথে বিস্ফোরিত ককটেল আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে ঘটনার সাথে জড়িতদের আটকে ব্যবস্থা নেওয়া হবে জানিয়ে তিনি বলেন জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি করতে দুষ্টচক্র এ ধরণের ঘটনা ঘটিয়েছে।

এ ঘটনার জন্য খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের শিক্ষা ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক দিদারুল আলম দিদার, বিএনপি-জামায়াতকে দায়ী করে দেশকে অস্থিতিশীল করতে বোমা হামলার ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে বলে অভিযোগ এনে সোমবার সকাল ১০টায় বিক্ষোভ মিছিলের ঘোষণা দেন।

অপরদিকে-খাগড়াছড়ির মানিকছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগ অফিসের সামনে পেট্রোল বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এসময় সেখানে কেউ না থাকায় কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। রবিবার সন্ধ্যা ৭ টার দিকে দলীয় অফিসের বাইরে ১টি পেট্রোল বোমার বিস্ফোরণ ঘটে। এসময় একটি পেট্রোল বোমা বিস্ফোরিত হয়ে আগুন ধরলেও দুটি পেট্রোল বোমা অবিস্ফোরিত থেকে যায়। এতে অফিসের আশেপাশের এলাকার লোকজনের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

এদিকে ঘটনার পর পর বিএনপিকে দায়ী করে মানিকছড়িতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠন। মানিকছড়ির প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে বিক্ষোভ মিছিলটি উপজেলা সদরের আমতলী এলাকায় সমাবেশ করে।

পেট্রোল বোমার বিস্ফোরন ঘটনায় বিএনপিকে দায়ী করে জড়িতদের চিহ্নিত করে গ্রেফতারের দাবি জানিয়ে ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম দেওয়া হয়। মানিকছড়ি থানা এসআই মো: মাসুদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। এ ঘটনার পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে অবিস্ফোরিত ২টি পেট্রোল বোমাসহ লাঠিসোটা উদ্ধার করেছে।