॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥

সামনে জাতীয় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সুযোগ সন্ধানীরা নানা ধরনের গুজব ছড়িয়ে পাহাড়ে সাম্প্রদায়িক সংঘাত ছড়াতে চেষ্টা করবে। তাই গুজবে কান না দিয়ে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে। সরকার ও স্থানীয় প্রশাসনও এ বিষয়ে সতর্ক নজর রাখছে বলে মন্তব্য করেছেন রাঙামাটির জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশীদ।

সোমবার (৩ সেপ্টেম্বর) সকালে রাঙামাটির বরকল উপজেলার সুবলং বাজারে একটি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক এই মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, সরকারের পাশাপাশি এলাকার উন্নয়নে দলমত নির্বিশেষে সবাইকে ঐক্য. সংহতি ও ভ্রাতৃত্ববোধ অটুট রেখে এগিয়ে আসতে হবে। এসময় জেলা প্রশাসক রাঙামাটির কোন শিক্ষার্থীর উচ্চ শিক্ষার ক্ষেত্রে আর্থিক সহযোগিতার প্রয়োজন হলে তিনি প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবেন বলেও উল্লেখ করেন।

বরকলের সুবলং ইউনিয়ন পরিষদ স্থানীয় সুবিধাভোগীদের মধ্যে লোকাল গভর্ন্যান্স সাপোর্ট প্রজেক্ট (এলজিএসপি-৩) ২০১৭-১৮অর্থ বছরের বিভিন্ন উপকরণ বিতরণে এ অনুষ্ঠান আয়োজন করে। এরমধ্যে রয়েছে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সৌর বিদ্যুৎ প্যানেল, জেনারেটর, ক্রীড়া সামগ্রী, শিক্ষার্থীদের স্কুলড্রেস, মহিলাদের সেলাই মেশিন ও কৃষকদের মাঝে স্প্রে মেশিন। এছাড়া স্থানীয়দের চাহিদার ভিত্তিতে পাহাড়ি ছড়া থেকে পানি সরবরাহ করার জন্য পাইপ ও ট্যাংক বিতরণ করা হয়।

সুবলং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তরুণ জ্যোতি চাকমার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বরকল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মনি চাকমা ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাজিয়া পারভীন।

এছাড়া বক্তব্য রাখেন, বরকল উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক বিহারী চাকমা, এলজিএসপি-৩ ডিস্ট্রিক ফ্যাসিলিটেটর নিকন চাকমা ও ধামাইছড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অমল কান্তি চাকমা। অনুষ্ঠানে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক, ব্যবসায়ী ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। জেলা প্রশাসক বলেন ‘বর্তমান সরকার তৃণমুল পর্যায়ে জনগণের উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। শিক্ষা, যোগযোগ, নারী উন্নয়ন ও কৃষিখাতে উন্নয়নের জন্য স্থানীয় জনগণের চাহিদার নিরিখে এসব উপকরণ বিতরণ করা হয়’।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে উপজেলা চেয়ারম্যান মনি চাকমা বলেন, ‘স্থানীয় সরকারের কার্যক্রম আগে থেকে অনেক প্রসারিত হয়েছে। সরকারের দেয়া বরাদ্দগুলো সঠিকভাবে কাজে লাগাতে হবে। দেশের ও জনগণের উন্নয়নের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর লক্ষ্য পুরণে আমাদের সকলকে আন্তরিকতার সাথে কাজ করতে হবে’।

মনি চাকমা আরো বলেন- ‘বরকলের খুবই দুর্গম এলাকাগুলোতে সময় দিতে চাই; একারণে কিছুটা উন্নত সুবলং এলাকায় আসার সময় হয় না। যেসব এলাকায় সহজে সরকারি সেবা পৌছেনা সেসব এলাকায় বেশি সময় ব্যয় করি’। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাজিয়া পারভীন বলেন- বরকল উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে এলজিএসপি প্রকল্পের মাধ্যমে পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন উপকরণ বিতরণ করা হবে। অনুষ্ঠানে সুবলং ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের ৪টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ফুটবল ২০টি, ভলিবল ২০টি, নেটসহ জার্সি ৪সেট, কেরম ২০টি দেয়া হয়।

২নং ওয়ার্ডে জনসাধারণের চাহিদার ভিত্তিতে ১৭টি গাজী ট্যাংক, ৭ হাজার ফুট পানির পাইপ, ৮৩টি স্প্রে মেশিন, ও বরুনাছড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের জন্য ১টি জেনারেটর ও ক্রীড়া সামগ্রী দেয়া হয়। এছাড়া বরুনাছড়ি জোন জুনিয়র স্কুলের মাঠ ও উকছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ সমতল করণের জন্য অর্থ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে বলে জানান সুবলং ইউনিয়ন পরিষদের সচিব নতুন বিকাশ চাকমা।