স্টাফ রিপোর্টার । হিলরিপোর্ট

বাঘাইছড়ি: রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলায় নিজের মায়ের সাথে অভিমান করে নিজ ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুব্রত বড়ুয়া। আর ছাত্রনেতার এমন অকালে চলে যাওয়াকে মেনে নিতে কষ্ট হয়েছে উপজেলা চেয়ারম্যান সুদর্শন চাকমার। তাই তিনি সুব্রতকে নিয়ে একটি আবেগঘন স্টাটাস দিয়েছেন।

যা হিলরিপোর্ট-এ হুবহু তূলে ধরা হলো-

“হাজারো সমস্যা নিয়ে মানুষের জীবন। সমাধান করতে পারি ২৫% মাত্র। তবুও হতাশ না হয়ে প্রত্যাশা করতে হয় বেশী, কালো মেঘ কেঁটে যাবে একদিন। মানুষের জীবনে সমস্যার প্রক্ষিতে আবেগ আসে কিন্তু যখন অতিচেতনার সাথে নিজেকে সংযোগ স্থাপন করা যায় তখন সে ক্ষতিকর আবেগকে নিয়ন্ত্রণ করা যায়। যে কোন বাস্তবতায় সঠিক সিদ্ধান্তের জন্য নীবর মূহুর্ত বের করে চিন্তা করা দরকার, দেখা যাবে-সমস্যা সমাধানের নতুন পথ বের হয়ে গেছে। তাই, কোন ঘটনা/ সমস্যার প্রেক্ষিতে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া/ সিদ্ধান্ত নেওয়া কোনভাবেই উচিত নয়। একটু থামুন,লম্বা দম নিন। আর নিজের মনকে জিজ্ঞেস করুন- এ মূহুর্তে আমার করণীয় কি? যে সিদ্ধান্ত আমার,পরিবারের,সমাজের ও বন্ধুবান্ধবদের জন্য ভাল হতে পারে, সেটাই উত্তম সিদ্ধান্ত। ★ সুব্রত# তোমার অংক ভুল ছিল, তোমার এই ভুল সিদ্ধান্তের কারনে অনেকের ক্ষতি হয়ে গেল। তুমি আমার নিরাপদ যাত্রাপথে একজন বিশ্বস্ত বন্ধু ছিলে। তুমি খুবই আবেগি বলেই – তোমার বিরুদ্ধে অনেকের নানা ধরনের অভিযোগ ছিল,আজ সেটা প্রমান করে গেলে- তুমি সত্যিই আবেগি/অভিমানি # তোমাকে অনেকবার বুঝিয়েছি, তবুও কথা শুনোনি। হ্যাঁ,এটি তোমার জীবনের শেষ ভুল সিদ্ধান্ত#তোমাকে ভুল ধরার সুযোগ আমরা আর কেউই পাবো না। যাই হোক,সকল অভিমান বাদ দিয়ে-“ভাল থেকো” পরকালে শান্তিতে থেকো আর তোমার জন্য এটাই বাংলা নববর্ষের শেষ শুভেচ্ছা।”