॥ বাঘাইছড়ি প্রতিনিধি ॥

পাহাড়ি জেলা রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলায় প্রত্যাহারকৃত সেনা ক্যাম্প পুণ:স্থাপন, ঝুঁকিপূর্ণ পাহাড়ি এলাকায় নতুন সেনা ক্যাম্প বৃদ্ধিকরণ ও ১৮মার্চ নির্বাচনী গাড়ির বহরে হামলাকারী খুনী পাহাড়ি সন্ত্রাসীদের দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে বাঘাইছড়ির সর্বস্থরের জনগণ। সোমবার (২৫মার্চ) সকালে উপজেলা পরিষদের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, পাহাড়ের সাধারণ মানুষ আর নিরাপদে নেই। দূর্গম এলাকাগুলো এখন সন্ত্রাসীদের অভয় আশ্রম। এ সকল সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা সাধারণ মানুষকে হত্যা করে দূর্গম এলাকাগুলোতে পালিয়ে যায়।

বক্তারা আরও বলেন, গত ১৮মার্চ নির্বাচনী কাজ শেষ করে ফিরা আসা কর্তাদের কি দোষ ছিলো। তাদের এভাবেই হত্যা করা হয়েছে। স্বাধীন দেশে সন্ত্রাসীরা মানুষকে যেভাবে নির্বিচারে হত্যা করে যাচ্ছে তাতেই আমরা এ এলাকায় দিনদিন আতঙ্কিত হয়ে পড়ছি। এর সুষ্টু বিচার না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলমান থাকবে।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, বাঘাইছড়ি পৌরসভার মেয়র জাফর আলী খান, উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হাজী আব্দর শুক্কুর মিয়া, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবদুর ছবুর এবং ১৮মার্চ ঘটনায় নিহতের স্বজনরা।

মানববন্ধন শেষে অত্র এলাকার সংঘবদ্ধ জনগণরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাদিম সারোয়ার’র মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর একটি স্মারকলিপি প্রেরণ করেন।

গত ১৮মার্চ নির্বাচনী কাজ শেষে বাঘাইছড়ি ফিরার পথে নির্বাচনী কাজে জড়িত সংশ্লিষ্টদের উপর একদল সন্ত্রাসী ভারী অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে নির্বিচারে গুলি করে ৭জনকে হত্যা করে।