॥ বান্দরবান প্রতিনিধি ॥

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার রেজু মনজয় পাড়ায় পাহাড় কাটার সময় মাটি চাপা পড়ে ৩ জনের মৃত্যুর ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মঙ্গলবার (২২ মে) বিকালে ৪জনকে আসামি করে মামলাটি দায়ের করেন ঘুমধুম ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম পুলিশ প্রধান ও নিহতের স্বজন ছৈয়দ আলম।

এদিকে ব্যক্তি স্বার্থে পাহাড় কাটায় মৃত্যুর ঘটনায় বান্দরবান অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মুফিদুল আলমকে প্রধান করে ৫সদস্য একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে জেলা প্রশাসন।

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন অতিরিক্তি জেলা পুলিশ সুপার ইয়াছির আরাফাত, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস.এম সারওয়ার কামাল, ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক (ভা:) মো: ইকবাল হোসেন ও ঘুমধুম ইউপি চেয়ারম্যান একেএম জাহাঙ্গীর আজিজ।

এদিকে বুধবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কামরুজ্জামান নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস.এম সারওয়ার কামাল, জেলা পরিষদ সদস্য লক্ষী পদ দাশ, নাইক্ষংছড়ি আওয়ামী লীগের সভাপতি মো- শফিউল্লাহ, নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান তসলিম ইকবাল চৌধুরী প্রমুখ

নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান তসলিম ইকবাল চৌধুরী জানান, জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিহত ৩ পরিবারকে ৭৫ হাজার টাকা এবং আহত ২ জনকে ৩০ হাজার টাকা অনুদান দেন। এ ছাড়াও পার্বত্য প্রতিমন্ত্রীর নিজস্ব তহবিল হতে নিহতদের প্রতি পরিবারকে ৩৫ হাজার টাকা করে ৩ পরিবারকে ১ লক্ষ ৫ হাজার টাকা এবং আহত ২ পরিবারকে ৩০ হাজার টাকা অনুদান প্রদান করেন।

অপরদিকে নাইক্ষ্যংছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: আলমগীর শেখ জানান, মাটি কাটার দায়ে মনজয়পাড়া গ্রামের মৃত রাজেন্দ্র বড়–য়ার চার ছেলে যথাক্রমে সোপায়েন বড়ুয়া, লিটন বড়ুয়া, ভুট্টু বড়ুয়া, ও ভুতিয়া বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।