॥ মঈন উদ্দীন বাপ্পী ॥

রাঙামাটি আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য ও কেন্দ্রীয় আ’লীগের সদস্য দীপংকর তালুকদার বলেছেন, জীবনের শেষ সময়েও তিনি নেতা-কর্মীদের ভালবাসায় সিক্ত হতে চান।

শুক্রবার (২২ফেব্রুয়ারী) বিকেলে রাঙামাটি পৌরসভা প্রাঙ্গনে রাঙামাটির প্রাক্তন ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ কর্তৃক আয়োজিত এক সংবর্ধন সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এমপি দীপংকর আরও বলেন, আমার রাজনীতির বয়স ৫০বছর চলছে। আরো ৫০বছর যদি বাচি সে সময়েও দলীয় নেতা-কর্মীদের ভালবাসা নিয়ে বাঁচতে চাই।

তিনি জানান- এলাকার সাধারণ মানুষ বুঝে, জানে। এজন্য ২০১৮ সালের নির্বাচনে আমাকে রেকর্ড পরিমাণ ভোট দিয়ে বিজয়ী করেছে। এজন্য জীবনে যতদিন বাচি ততদিনে তাদের জন্য কাজ করে যাবো। তাদের উন্নয়নের জন্য সামনে থেকে নেতৃত্বে দিবো।

আ’লীগের বর্ষীয়ান এ নেতা আরও জানান, এক সময় আ’লীগের নেতা-কর্মীদের মানুষ পাগল বলতো। এরপর বেকুপ বলতো। এখন আ’লীগের গণজোয়ার রুখে দিতে আ’লীগের নেতা-কর্মীদের গুলি করে হত্যা করা হচ্ছে। কিন্তু এ ভাবে আ’লীগের জোয়ার রুদ্ধ করা যাবে না বলে জানান তিনি।

এমপি দীপংকর বলেন- আমার শেষ সময়। দলে এখন অনেক তরুণ নেতা-কর্মীর সৃষ্টি হয়েছে। তারা আগামী দিনগুলোতে নেতৃত্ব প্রধান করবে।

এসময় তিনি মঞ্চে উপবিষ্ট উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নেওয়া দলীয় প্রার্থীদের পরিচয় করিয়ে দেন এবং আসন্ন ১৮মার্চ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীদের ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করার জন্য দলের নেতা-কর্মী এবং সাধারণ মানুষদের প্রতি আহ্বান জানান।

রাঙামাটির সাবেক ছাত্রলীগ নেতা অংসুসাইন চৌধুরীর সভাপতিত্বে এবং শাহ এমরাণ রোকনের সঞ্চালনায় এসময় বক্তব্য রাখেন- মহিলা সংরক্ষিত আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু, রাঙামাটি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাকমা, জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী মুছা মাতব্বর, রাঙামাটি প্রেস ক্লাবের সভাপতি ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সাখাওয়াত হোসেন রুবেলসহ দলটি স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।