॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় এর সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেছেন, পাহাড়ের উন্নয়নে সরকারি সকল প্রতিষ্ঠানের সমন্বয় করার কাজ করছি। কারণ আমি পাহাড়ে দীর্ঘ ১৮বছর কাজ করে উপলব্দী করেছি যে, সমন্বয় ছাড়া কাজ করলে পাহাড়কে উন্নয়ন করা কোনদিন সম্ভব নয়।

বৃহস্পতিবার (০৬ ফেব্রুয়ারী) দুপুরে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে রাঙামাটি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্টি মিলনায়তনে তিন পার্বত্য জেলার উপজেলার চেয়ারম্যান, পৌরসভার মেয়র ও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানবৃন্দের সমন্বয়ে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সচিব আরও বলেন, পার্বত্যঞ্চলে সিটি করপোরেশন নেই, কোন ইন্ডাস্ট্রি নেই, রিকশা নেই, নেই কোন কল-কারখানা। এ অঞ্চলে জমি-জমা ক্রয়-বিক্রয়ে কোন টেক্স পাই না পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদগুলো। জেলা পরিষদের আয়ের কোন ব্যবস্থা নেই।

সচিব জানান, পাহাড়ের পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদগুলোর আয়বর্ধক কোন প্রতিষ্ঠান না থাকায় মেয়র, চেয়ারম্যান, সচিব তরফদাররা নিয়মিত বেতন-ভাতা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এখনি উপযুক্ত সময় এগুলো নিয়ে ভাবার।

সচিব হেলালুদ্দীন আরও জানান, পাহাড়ে দীর্ঘদিন ধরে অশান্তি ছিলো। তৎকালীন সময়ে বিদেশী মহল থেকে শুরু করে অনেকে পাহাড়ে শান্তির বিঘœ ঘটাতে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ছিলো। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঐকান্তিক প্রচেষ্ঠায় পাহাড়ে শান্তি বিরাজ করছে।

সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় এর মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদূর উশৈসিং এমপি, রাঙামাটি আসনের সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার। অনুষ্ঠানটি দুপুর ১২টা শুরু হয়ে বিকেলে ৩টায় শেষ হয়। সভার পরিচালনা করেন, রাঙামাটি জেলা প্রশাসক (ডিসি) একেএম মামুনুর রশীদ।

এ মতবিনিময় সভায় তিন পার্বত্য জেলার জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান,উপজেলার চেয়ারম্যান, পৌর সভার মেয়রগণ এবং ইউনিয়ন পরিষদগুলোর চেয়ারম্যানরা অংশ নেন।