॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥

সাবেক প্রতিমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য দীপংকর তালুকদার বলেছেন, পাহাড়ে অবৈধ অস্ত্রধারীদের মধ্যে রক্তাক্ত সংঘাত বেড়ে যাওয়ার ঘটনায় সাধারণ মানুষ আজ শংকিত হয়ে পড়েছে।

পার্বত্য শান্তি চুক্তির সুফল সাধারণ মানুষের দ্বারে দ্বারে পৌঁছাতে হলে আগে সকল অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করতে হবে। এখানে অবৈধ অস্ত্রের ঝনঝনানি যতদিন বন্ধ হবে না, ততদিন জনগণ স্বাধীনভাবে ভোটাধিকার প্রয়োগ করার অধিকারও পাবেনা ।

শিক্ষা, স্বাস্থ্য, ব্যবসা-বানিজ্যসহ পার্বত্যবাসীর জীবনমান উন্নয়নের জন্য শান্তি ও সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠায় জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে পাহাড়ী-বাঙ্গালী সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে অস্ত্রবাজি-চাঁদাবাজির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।

শনিবার (২২এপ্রিল) দুপুরে সীমান্তবর্তী বরকল উপজেলাধীন ভূষনছড়া বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মোঃ আলমগীর হোসেনের সভাপতিত্বে বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক ও বরকলের সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান সন্তোষ কুমার চাকমা, রাঙামাটি জেলা পরিষদ সদস্য স্মৃতি বিকাশ ত্রিপুরা, জেলা পরিষদ সদস্য ও বরকল উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সুবির কুমার চাকমা, আওয়ামীলীগ নেতা প্রভাত কুমার চাকমা, রাঙামাটি জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নুর মোহাম্মদ কাজল, ভূষনছড়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মামুনর রশিদ, ভূষনছড়া বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হাফিজুর রহমান জামাল, ছোট হরিনা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কবির হোসেন প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে দীপংকর তালুকদার আরো বলেছেন, পার্বত্য শান্তি চুক্তি স্বাক্ষরের সময় বিএনপি জামায়াত জোট চুক্তির ঘোর বিরোধিতা করেছিলো। তারা এই চুক্তিকে কালো চুক্তি আখ্যায়িত করে পার্বত্য অঞ্চল থেকে বাঙ্গালীদের তাড়িয়ে দেয়া হবে বলে জনমনে বিভ্রান্তি ছড়িয়েছিলো।

কিন্তু পার্বত্য শান্তি চুক্তির ২১ বছর পরও কোন বাঙ্গালীকে এ অঞ্চল থেকে চলে যেতে হয়নি। এখানে পাহাড়ী-বাঙ্গালীরা সবাই চাকুরী পাচ্ছে, ব্যবসা বাণিজ্য করতে পারছে। বিএনপি জামায়াতের ধাপ্পাবাজি জনগণ বুজে গেছে। পরে বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।