॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥

রাঙামাটি: ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিক প্রধান তপন জ্যোতি চাকমা বর্মার মৃত্যুর তিন দিনের মাথায় তার স্থলে ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিক জলেয়া চাকমাকে সভাপতি এবং উজ্জ্বল কান্তি চাকমাকে সাধারণ সম্পাদক করে ১১সদস্য বিশিষ্ট নতুন কমিটি ঘোষণা করেছে।

রোববার ( ৬মে) রাতে সংগঠনটির সভাপতি জলেয়া চাকমা স্বাক্ষরিত গণমাধ্যমে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

 

        “প্রেস বিজ্ঞপ্তি”

সম্মানিত বিভিন্ন প্রেস মিডিয়া এবং ইলেক্ট্রনিক্স সাংবাদিক বৃন্দ। আমাদের প্রাণপ্রিয় সংগঠন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (গণতান্ত্রিক) পার্টি পক্ষ থেকে আপনাদেরকে রক্তিম শুভেচ্ছা জানাচ্ছি ।

আপনারা জানেন যে, আমাদের সংগঠন বিগত ৪/৫ মাস সাংগঠনিক কার্যক্রম ও জনসমর্থন দেখে স্বৈরাচারী প্রসীত পন্থী ইউপিডিএফ সাংগঠনিকভাবে ও জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন ও দিশাহারা হয়ে সন্ত্রাসী কার্যকলাপ শুরু করে। গত ০৪/০৫/২০১৮ইং তারিখ রোজ শুক্রবার আমাদের ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) পার্টির আহ্বায়ক তপন জ্যোতি চাকমা (বর্মা) সন্ত্রাসী সংগঠন প্রসীত পন্থী ইউপিডিএফ’র সন্ত্রাসী হামলায় নির্মমভাবে নিহত হন। স্বৈরাচারী ইউপিডিএফ’র ধারনা আমাদের প্রাণপ্রিয় নেতা পার্টির আহ্বায়ক তপন জ্যোতি চাক্মাকে খুন করলে আমাদের ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) সংগঠনটি ধ্বংস বা বিলুপ্তি হয়ে যাবে। নেতাকর্মীদের উপর সন্ত্রাসী বর্বর এবং অমানবিক হামলা চালিয়ে আমাদের সংগঠনের নিয়মতান্ত্রিক কার্যক্রম বন্ধ করা যাবে না। নেতাকে হারিয়ে নেতাকর্মীদের সাহস এবং অদম্য মনোবল উদয় হয়ে আলোচনার ভিত্তিতে সর্বসম্মতিক্রমে জলেয়া চাক্মাকে সভাপতি এবং উজ্জ্বল কান্তি চাক্মাকে সাধারণ সম্পাদক করে মোট ১১ (এগার) জন সদস্য নিয়ে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করে ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) আঞ্চলিক রাজনৈতিক দল ঘোষনা করা হল।

সংগ্রামী শুভেচ্ছান্তে-
তারিখ: ০৬ মে, ২০১৮ইং

(জলেয়া চাক্মা)
সভাপতি
টচউঋ (গণতান্ত্রিক)।

 

বিজ্ঞপ্তিতে কমিটি গঠনের কারণ সম্পর্কে বলা হয়- ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিক সংগঠন বিগত ৪-৫ মাস সাংগঠনিক কার্যক্রম ও জনসমর্থন দেখে স্বৈরাচারী প্রসীত পন্থী ইউপিডিএফ সাংগঠনিকভাবে জনগণ থেকে বিছিন্ন ও দিশেহারা হয়ে সন্ত্রাসী কার্যকলাপ শুরু করে। গত ৪মে শুক্রবার ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিক পার্টির আহ্বায়ক তপন জ্যোতি চাকমা বর্মাকে সন্ত্রাসী সংগঠন প্রসীত পন্থী ইউপিডিএফ’র সন্ত্রাসীরা হামলায় নির্মমভাবে নিহত হন বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়- স্বৈরাচারী ইউপিডিএফ’র ধারনা ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিক নেতা ও পার্টির আহ্বায়ক তপন জ্যোতি চাকমাকে খুন করলে ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিক সংগঠনটি ধ্বংস বা বিলুপ্তি হয়ে যাবে। নেতাকর্মীদের উপর সন্ত্রাসী বর্বর এবং অমানবিক হামলা চালিয়ে সংগঠনের নিয়মতান্ত্রিক কার্যক্রম বন্ধ করা যাবে না প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়- নেতাকে হারিয়ে নেতা-কর্মীদের সাহস এবং অদম্য মনোবল উদয় হয়ে আলোচনার ভিত্তিতে সর্বসম্মতিক্রমে জলেয়া চাকমাকে সভাপতি এবং উজ্জ্বল কান্তি চাকমাকে সাধারণ সম্পাদক করে ১১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়।

এ বিষয়ে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় নেতা লিটন চাকমা বলেন, আমাদের নেতার মৃত্যুতে দলীয় পদটি শূন্য হওয়ায় ১১সদস্য বিশিষ্ট নতুন কমিটি গঠন করা হয়। কিছুদিনের মধ্যে কমিটির নেতাদের পরিচয় করিয়ে দেওয়া হবে।