॥ স্পোর্টস রিপোর্টার ॥

সাইফুল আলম রাশেদ। তিনি রাঙামাটি জেলা ক্রিকেট টিমের সাবেক সদস্য। যিনি রাঙামাটি শহরে ‘ রাশেদ’ নামে বেশ পরিচিতি। যার হৃদয়ে, চিন্তা,ধ্যাণ, ধারণায় সারাক্ষণ খেলার পোকা লেকে লাগে।

তাই তো দেশের, জেলার ক্রীড়াঙ্গনের যে কোন সাফল্যে মাথায় জাতীয় পতাকা বেধেঁ নিজের শখের বাইকটা নিয়ে জেলা শহরে শোডাউনে বেরিয়ে পড়ে। এ ধরণের উচ্ছাস দেখে অনেক তরুণ তার ভক্ত বনে গেছে।

পেশাগত কাজের পরিধি এবং বয়সের ভারে খেলাটা ছেড়ে দিলেও মন থেকে খেলাটা ছাড়তে পারেনি। মাঠের খেলাটা নিয়ে তার বড্ড অভিমান। খুঁজে ফিরে ফেলা আসা তার তারুণ্যের স্মৃতি। তাইতো অবসর পেলে যেখানে খেলা সেখানে রাশেদ হাজির, মাতিয়া তুলে মাঠ প্রাঙ্গন।

এ বিষয়ে হিল রিপোর্টকে একান্ত সাক্ষাৎকার দিয়েছেন রাশেদ। তিনি বলেছেন, আমি খেলা-ধূলা পাগল মানুষ। প্রিয় খেলা ক্রিকেট। স্কুল জীবন থেকে ক্রিকেটের সাথে লেগে আছি। এজন্য মা-বাবার বকুঁনি খেয়েছি অনেকবার। কিন্তু খেলাটা ছাড়তে পারিনি। খেলা মিশে গেছে রক্তের সাথে। তাই পেশাগত কাজের ফাঁকে যখনি সময় পায় তখনি ছুঁটে বেড়ায় মাঠে।

রাশেদ আরও বলেন, আমি ব্যাটসম্যান কাম উইকেট রক্ষক ছিলাম। খেলোয়ারী জীবনে জেলার সুনাম ধন্য রফিক স্মৃতি ক্রিকেট ক্লাবের হয়ে ১ম বিভাগ লীগে তিনবার, অভিলাস ক্রিকেট ক্লাবের হয়ে ১ম বিভাগ লীগ একবার এবং রাঙামাটি জেলা দলের হয়ে ক্রিকেট লীগ খেলেছি একবার। এছাড়া অনুর্দ্ধ ১৩, ১৬ এবং ১৮ বয়স ভিত্তিক খেলায় জেলা টিমের হয়ে অনেকবার অংশ নিয়েছি।

বর্তমানে তিনি রফিক স্মৃতি ক্লাবের সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। এর আগে তিনি ক্লাবটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও যুগ্ম আহবায়কের দায়িত্ব পালন করেছেন বলে জানান।

সাবেক জেলা টিমের এ খেলোয়ার জানান, আমার একটি আক্ষেপ, আমাদের সময়ে সারা বছর মাঠে একটা না একটা লেগে থাকতো। এখন মাঠ আছে, খেলা-ধুলা নেই। তরুণ সমাজের একটা অংশ এখন মাদক নেশায় জড়িয়ে পড়েছে। দিন দিন এ জেলায় খেলোয়ার সংখ্যা কমে যাচ্ছে। আমরা আমাদের সোনালী অতীত হারিয়ে ফেলছি। তাই এ জেলা থেকে মাদক দূর করতে খেলা-ধূলার কোন বিকল্প নেই।

এছাড়া খেলোয়ার বের করে আনার জন্য মাঠের সংখ্যা বৃদ্ধি এবং দখল হয়ে যাওয়া মাঠগুলো পুনরুদ্ধার জরুরী দবি তার। তিনি যোগ করে বলেন, পাহাড়ে আর মাদক, রক্ত, খুন, গুম, চাঁদাবাজি, হানাহানি দেখতে চাই না, পাহাড় হয়ে উঠুক ক্রীড়াঙ্গনের স্বর্গ।

আগামী ২৯ সেপ্টেম্বর রাঙামাটি জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাচনে সাবেক এ ক্রিকেটার কার্যনির্বাহী সদস্য পদে টেলিভিশন মার্কা নিয়ে নির্বাচন করছেন। এজন্য তিনি সকল ক্রীড়ামোদীর সহযোগিতা কামনা করেন