জেলা প্রতিনিধি। হিলরিপোর্ট

খাগড়াছড়ি:খাগড়াছড়ির মহালছড়িতে মেয়ের স্বীকারোক্তিতে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ এনে মামলা করেছে সে কিশোরীর পিতা। মামলায় আল-আমিনকে আসামী করে ৩ জনকে অজ্ঞাত করে আসামী করা হয়।

এ ঘটনায় মহালছড়ি থানার পুলিশ অভিযান চালিয়ে মঙ্গলবার সকালে ধর্ষণের চেষ্টায় অভিযুক্ত আল-আমিন (২৭) কে চট্টগ্রামের সীতাকু- কদম রসূল এলাকা থেকে আটক করে। পরে তার স্বীকারোক্তিতে মহালছড়ি থানা এলাকা থেকে আব্দুল কাদের (২৮) কে আটক করা হয়।

মামলা সূত্রে জানা যায়, বিগত ২/৩ মাস আগে থেকে ঐ স্কুল ছাত্রীর সাথে আল-আমিনের প্রেমের সর্ম্পক গড়ে উঠে। এর সূত্র ধরে গত ৩১ আগষ্ট সন্ধ্যায় মেয়ের সাথে ছেলের দেখা করার কথা হয়। এক পর্যায়ে মহালছড়ির থলিপাড়া এলাকার রাবার বাগানে দেখা করলে আল-আমিন মেয়ের সাথে ধস্তাধস্তি করলে সে আঘাত প্রাপ্ত হয় বলে মামলার এজাহারে উল্লেখ করে।

পরে টিলাপাড়াস্থ আর্য্য মিত্র বৌদ্ধ বিহার পাশে পাওয়া যায়। পরে এক শিক্ষককের বাসায় আশ্রয় নেয়। এক পর্যায়ে জানাজানি হয়। এ ঘটনায় ৭ সেপ্টেম্বর মহালছড়ি থানায় মেয়ের পিতা মামলা দায়ের করে। যার মামলা নং ২।

মহালছড়ি থানার ওসি মো: জাহাঙ্গীর বলেন, ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে কিশোরীর পিতার অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিযুক্ত আল-আমিনকে চট্টগ্রামের সীতাকু- কদম রসূল এলাকা থেকে আটক করে। পরে তার স্বীকারোক্তিতে মহালছড়ি থানা এলাকা থেকে আব্দুল কাদেরকে আটক করা হয় বলে তিনি জানান। তবে এর আগে উক্ত ঘটনায় স্থানীয় বৈঠকে ঘটনা বর্ণনায় ভিন্ন রকম তথ্য প্রদান করে অভিযোগকারীরা।