॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥

রাঙামাটি শহরের এক প্রবাসী স্ত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে রাঙামাটি পৌর আ’লীগের অধীন ৫নং ওয়ার্ড কমিটির সাধারণ সম্পাদক কিশোর চৌধুরীর ছেলে জয় চৌধুরীকে জেলা হাজতে পাঠিয়েছে বিজ্ঞ আদালত। রোববার (১৫মার্চ) রাঙামাটি আদালতে আসামী জামিন চেয়ে আবেদন করলে আদালত শুনানী শেষে তাকে কারাগারে প্রেরণ করে। আদালত এসময় আসামী কি করে গ্রেফতার না হয়ে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়িয়েছে তার কারণও জানতে চায়।

রাঙামাটি কোতয়ালী থানায় দায়ের করা বাদীর মামলার পত্র থেকে জানা গেছে, প্রবাসীর স্ত্রীর নিজ বাসায় গোসল শেষে কাপড় বদলানোর সময় প্রতিবেশী কিশোর চৌধুরীর ছেলে জয় চৌধুরী তার মুঠোফোনে গোপনে সেই দৃশ্য ধারণ করে এবং তার মেয়েকে পানিতে ফেলে মেরে ফেলা হুমকি প্রদর্শন করে জোরপূর্বক ধর্ষন করে।

পরবতী সময়েও সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে নিয়মিত প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণ করে আসছিলো জয় চৌধুরী। এক পর্যায়ে ওই নারী অন্ত:সত্ত্বা হয়ে পড়ায় বাধ্য হয়ে তার পরিবারকে বিষয়টি জানালে পরিবার ওই বখাটের পরিবারকে অবহিত করে। কিন্তু আওয়ামীলীগ লীগ নেতা কিশোর চৌধুরী শুরু থেকেই দলীয় প্রভাব দেখিয়ে নিজের ছেলের পক্ষে অবস্থান নেয় এবং বাদী পক্ষকে প্রতিনিয়ত হুমকি প্রদর্শন করে আসছে।

বাদী পক্ষ কোন বিচার না পাওয়ায় ২০১৯ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর রাঙামাটি কোতয়ালী থানায় ধর্ষণ ও প্রতারণার অভিযোগ এনে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ এবং সংশোধনী /০৩ ধারায় একটি মামলা দায়ের করে। পরবর্তী সময়ে মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) রাঙামাটি আদালতে এ ঘটনায় একটি প্রতিবেদন দাখিল করে।

এদিকে এতদিন মামলাটি আদালতে থাকলেও রাজনৈতিক চাপের কারণে আসামীকে এতদিন পুলিশ গ্রেফতার করেনি বলে অভিযোগ করেছেন ধর্ষণের শিকার ওই নারী ও তার স্বজনরা।

বাদী পক্ষের আইনজীবি অ্যাডভোকেট বিপ্লব চাকমা বলেন, ধর্ষণের অভিযুক্ত জয় চৌধুরী রোববার দুপুরে মামলাটি থেকে জামিন চেয়ে আবেদন করলে বিজ্ঞ আদালত পরবর্তী শুনানীর দিন ধার্য না হওয়া পর্যন্ত আসামীকে কারাগারে থাকার নির্দেশ প্রদান করেন।