মঈন উদ্দীন বাপ্পী । হিলরিপোর্ট

রাঙামাটি: আগামী ১৪ফেব্রুয়ারী আসন্ন পৌরসভার নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আ’লীগ এবং বিএনপিসহ অন্যান্য প্রার্থীদের প্রচারণায় মুখরিত পাহাড়ি জেলা শহর রাঙামাটি। ভোটের দিন যতই অতিবাহিত হচ্ছে, প্রার্থীদের প্রচারণা তত বাড়ছে।

এইবারের নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দীতা করছেন সর্বমোট ৫জন। তারা হলেন- আওয়ামী লীগের প্রার্থী আকবর হোসেন চৌধুরী নৌকা প্রতীক নিয়ে, বিএনপির প্রার্থী মামুনুর রশীদ মামুন ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে, জাতীয় পার্টির প্রার্থী প্রজেশ চাকমা লাঙ্গল প্রার্থী নাঙ্গল প্রতীক নিয়ে, বিপ্লবী ওয়ার্কাস পার্টির প্রার্থী আব্দুল মান্নান রানা কোদাল প্রতীক নিয়ে এবং আ’লীগের বিদ্রাহী প্রার্থী (স¦তন্ত্র) অমর কুমার দাশ মোবাইল প্রতীক নিয়ে মেয়র পদে নির্বাচন করছেন ।

তবে আ’লীগ, বিএনপির মেয়র প্রার্থীর পাশাপাশি প্রচারণায় পিছিয়ে নেই সংরক্ষিত মহিলা এবং সাধারণ কাউন্সিলরা। তাদের প্রচারণায় মুখর হয়ে উঠেছে পুরো মহর। প্রার্থীরা প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন। এ যেন দম ফেলার ফুসরত নেই। ভোটারদের দোয়ারে দোয়ারে গিয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন এবং ক্ষমতায় আসীন হতে পারলে প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী কাজ করার আশ্বাস প্রদান করছেন।

জেলা নির্বাচন অফিস থেকে মার্কা পাওয়ার পর থেকে প্রার্থীরা তাদের নির্বাচনী এলাকায় পোষ্টার সাঁটাচ্ছেন এবং মাইকিং করে নিজের মার্কার প্রচারণা চালাচ্ছেন। পুরো শহর এখন প্রার্থীদের পোষ্টারে ঢেকে গেছে।

ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগ এবং বিএনপির মেয়র প্রার্থীরা অন্যান্য দলের চেয়ে প্রচরণায় নেমেছেনে জোরালো ভাবে। তবে মহিলা সংরক্ষিত কাউন্সিলর এবং সাধারণ সদস্যরা দাপিয়ে বেড়াচ্ছে নিজেদের নির্বাচনী এলাকায়। ভোট চেয়ে মানুষের দোয়ারে যাচ্ছেন।

আ’লীগের মেয়র প্রার্থী আকবর হোসেন চৌধুরী বলেন, আমি মেয়র থাকাকালীন চেষ্টা করেছি এলাকার উন্নয়ন করার। নিজের সবকিছু ঢেলে দিয়ে কাজ করেছি। এখন দল আমার উপর আস্থা রাখায় আবারো মেয়র পদে নির্বাচন করার নমিনেশন দিয়েছে। এখন জনগণ যদি আমাকে ভোট দিয়ে মেয়র পদে নির্বাচিত করে; তাহলে আমি আবারো জনগণের সেবায় মাঠে নামবো। আমার রেখে যাওয়া কাজগুলো সমাপ্ত করবো এবং পরিকল্পিত কাজগুলো বাস্তবায়নে কাজ শুরু করবো।

তিনি আরও বলেন, জনগণের কাছে আমার একটাই আশা; আমাকে আরেকবার সুযোগ দিক মেয়র পদে। তাহলে আমি জনগণের উন্নয়নে, এলাকার উন্নয়নে নতুন রূপে, নতুন আঙ্গিকে কাজ শুরু করবো।

বিএনপির মেয়র প্রার্থী অ্যাডভোকেট মামুনুর রশীদ বলেন, আমি রাজনীতি করি মানুষের কল্যাণের জন্য। রাজনীতি করার পাশাপাশি আমি বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক এবং ক্রীড়া জগতের সাথে জড়িত। সাধারন মানুষের খুব কাছাকাছি যাওয়া হয়েছে আমার। তাই দলও আমার উপা আস্থা রেখে আমাকে মেয়র পদে নমিনেশন দিয়েছে। যদি সুষ্ঠু ভোট হয় তাহলে আমি মেয়র হবো।

তিনি আরও বলেন, আমি মেয়র হলে রাঙামাটি পৌরসভাকে দুর্গন্ধমুক্ত, পর্যটন বান্ধব এবং শহর জুড়ে প্রযুক্তি সেবা বিস্তৃত করবো।

আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী স্বতন্ত্র অমর কুমার দে বলেন, আমি আ’লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী না, আমি আ’লীগের বিকল্প প্রার্থী। আমি দীর্ঘ ৪৫বছর রাজনীতি করেছি। যদি মেয়র হয় তাহলে রাঙামাটি শহরকে পর্যটন নগরী গড়ে তুলবো এবং শহরের খেটে খাওয়া মানুষের জন্য কাজ করবো।

জাতীয় পার্টির মেয়র প্রার্থী প্রজেশ চাকমা বলেন, আমি রাঙামাটি শহরকে পর্যটন শহর গড়ে তোলার পাশাপাশি সিটি করপোরেশনে উন্নতি করবো। সম্প্রতির উন্নয়নে কাজ করবো।

বিপ্লবী ওয়ার্কাস পার্টির মেয়র প্রার্থী আব্দুল মান্নান রানা বলেন, অতীতে যারা ক্ষমতায় ছিলো তারা মেহনতি মানুষের জন্য কাজ করেনি। আমি মেয়র হতে পারলে মেহনতি মানুষের জন্য কাজ করবো।