উপজেলা প্রতিনিধি । হিলরিপোর্ট

বাঘাইছড়ি: রাঙ্গামাটি জেলা বাঘাইছড়ি উপজেলায় চৌমুহনী মার্কেট এলাকায় সড়ক ও জনপথ বিভাগের হুকুম দখলকৃত জায়গার উপর গড়ে উঠেছে দোকানপাটসহ বহুতল ভবন। হাইওয়ে ২৯২৫ এর বিধি ৩(ia) মহাসড়ক বিধিমালা২০০১ এর বি ৮(১) অনুসারে খাগড়াছড়ি সড়ক ও জনপথ বিভাগের বহুতল ও দোকানপাট নির্মাণকারীদের বিরুদ্ধে উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলীর কার্যালয় সওজ খাগড়াছড়ি সড়ক উপ-বিভাগ হতে সবুজ চাকমা উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী সওজ কর্তৃক স্বাক্ষরিত গত ২৫.৩.২১তারিখ বহুতল ভবন নির্মাণকারীদের বিরুদ্ধে নোটিশ প্রদান করা হয়েছে।

কিন্তু দোকানপাট ঘরবাড়ি ও বহুতল ভবন নির্মাণ কারীরা সরকারি নোটিশকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে কাজ চলমান রেখেছেন। যাহা অবৈধভাবে জায়গা জবরদখল করে বহুতল ভবন নির্মান করা সরকারি সম্পত্তি দখলের সামিল।

জায়গাটি ১৯৯১-৯২ ইং মুলে অত্র ২২১ খতিয়ানের ২৮২৬. দাগের ১৪ শতক ২৮৭৮ দাগের ৫৭ শতক ২৮৭৯ দাগের ৩৪ শতক সহ ১ একর ৫ শতক জমি প্রকল্প প্রকৌশলী ২ আরএইচ ডি পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন প্রকল্প খাগড়াছড়ির নামে রেকর্ড করেন জেলা প্রশাসক রাঙ্গামাটি কার্যালয় হতে।

ইতিমধ্যে হুকুম দখলকৃত সরকারি সম্পত্তির উপর ঘরবাড়ি দোকানপাট সহ গড়ে উঠেছে ২০টি মত। স্থাপনাগুলো সরিয়ে নিতে তাদেরকে নোটিশ প্রদান করা হলেও অদ্যাবধি তারা কোনো কর্ণপাত করেননি। আবার কেউ কেউ নোটিশও রিসিভ করনি। বিষয়টি বাঘাইছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও বাঘাইছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ কে খাগড়াছড়ি সড়ক ও জনপথ বিভাগ বিভাগ হতে অবগত করা হয়েছে।

এ বিষয়ে বাঘাইছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ জনাব আনোয়ার হোসেন খান এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন খাগড়াছড়ি হতে আমরা একটি অনুলিপি সড়ক ও জনপথ বিভাগ থেকে পেয়েছি। এখানে স্থানীয় জনগন দোকানপাট নির্মাণ করছেন। আমরা তাদেরকে বন্ধ রাখার জন্য নির্দেশনা প্রদান করেছি। দোকানপাট কেউ নির্মাণ করলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে খাগড়াছড়ি সড়ক উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী জনাব সবুজ চাকমার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন আমরা ইতিমধ্যে সব দোকানদারকে নোটিশ দিয়েছি যাতে তারা নিজ দায়িত্বে স্থাপনাগুলো সরিয়ে নিতে পারেন। এবং সরিয়ে না নিলে আমরা সরকারী বিধি মোতাবেক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করব এবং নতুন করে যারা দখল করছেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে মিনিস্ট্রি থেকে নির্দেশনা রয়েছে।

নির্দেশনা মোতাবেক আমরা জেলা প্রশাসক রাঙ্গামাটি, উপজেলা নির্বাহী অফিসার বাঘাইছড়ি, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা থানা বাঘাইছড়িকে ইতিমধ্যে লিখিত আকারে অবগত করা হয়েছে। যাতে কেউ নতুন করে দখল ও বহুতল ভবন নির্মাণ করতে না পারে।