\ আবু নাছের, বাঘাইছড়ি প্রতিনিধি \

রাঙামাটির বাঘাইছড়িতে গত ১৮ই মার্চ নির্বাচনী দায়িত্ব পালন শেষ করে সাজেকের কংলাক ভোট কেন্দ্র থেকে ভোট বাক্স নিয়ে নির্বাচন কর্মকর্তা ও নিরাপত্তা কর্মীরা ফেরার পথে বাঘাইছড়ি সদর থেকে সাড়ে এগার কিলো মিটার দুরে বটতলা নামক এলাকায় পাহাড়ি সন্ত্রাসী কৃর্তক ব্রাশ ফায়ারে ৭জন নিহত ও ২৮জন গুরুতর আহত হয়।

এ ঘটনার একদিন পর ১৯শে মার্চ বিলাইছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সুরেশ কান্তি তঞ্চঙ্গ্যার হত্যাকারীদের শাস্তির দাবীতে বৃহস্পতিবার (২১মার্চ) সকালে বাঘাইছড়ি উপজেলা ও পৌর আওয়ামীলীগের উদ্যেগে উপজেলা পরিষদের সামনে বিশাল মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।উক্ত মানববন্ধনে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও বাঘাইছড়ি পৌরসভার মেয়র সহ এলাকার সচেতন সমাজ।

এ সময় বক্তব্য রাখেন, পৌর মেয়র জাফর আলী খান,উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুর শুক্কুর মিয়া, সাধারণ সম্পাদক আলী হোসেন, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন আল মামুন, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণত সম্পাদক মুনছুর আলী,উপজেলা মুক্তিযুদ্ধা কমান্ডার আবদুর ছবুর,বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজুর রহমান সহ বিভিন্ন স্থরের নেতৃবৃন্দ।

উক্ত মানববন্ধনে বক্তারা এই ঘটানোর জন্য জেএসএস এবং ইউপিডিএফকে দায়ী করেন এবং বলেন নিশ্চিত পরাজয় জেনে তারা সকালে প্রেসনোট ও সাংবাদিক সম্মেলন করে হুঁশিয়ারি দেন আর বিকালে ব্রাশ ফায়ার করে নিরহ মানুষকে হত্যা করেন। আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে যদি আসামীদের আইনের আওতায় আনা না হয় তবে ভবিষ্যতে আরও বড় কর্মসুচির হুশিয়ারি দেন এবং এই সন্ত্রাস নির্মূলে সেনা ক্যাম্প বৃদ্ধি ও চিরুনী অভিযান চালানোর দাবী জানান।