॥ প্রেস বিজ্ঞপ্তি ॥

গতকাল ১৮ মার্চ রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলায় ভোট গ্রহণ শেষে নির্বাচনী সরঞ্জাম নিয়ে ফেরার পথে বাঘাইছড়ির নয় মাইল এলাকায় সন্তুু লারমার আঞ্চলিক সন্ত্রাসী সংগঠনের ব্রাশ ফায়ারে প্রিসাইডিং কর্মকর্তাসহ নিহত ৭ ও ২০ এর অধিক আহত এবং আজ বিলাইছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সভাপতিকে হত্যার প্রতিবাদে অদ্য বুধবার সন্ধা ৭ঘঠিকার সময় পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদ রাৃামাটি জেলা শাখা উদ্দ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্টিত হয়। উক্ত বিক্ষোভ মিছিল টি পৌরসভার চত্তর থেকে শুরু হয়ে রাঙামাটির প্রাণ কেন্দ্র বনরুপায় সমাবেশে মিলিত হয়।

সংগঠনের জেলা সভাপতি জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে ও জেলা সেক্রেটারি আব্দুল মান্নান এর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, পার্বত্য নাগরিক পরিষদের জেলা আহব্বায়ক জামাল উদ্দীন, পার্বত্য নাগরিক পরিষদের জেলা যুগ্ন আহব্বায়ক আবু তাহের, জেলা সদস্য সচিব ছগির আহম্মদ,সভাপতির বক্তব্যে জাহাঙ্গীর আলম বলেন পার্বত্য অঞ্চলে দিন দিন গুম খুন বেরে চলেছে এরই ধারাবাহীকতায় আগামীকাল এবং আজকের হত্যাকান্ড হয়েছে প্রসাশন যুদি অবৈধ অস্ত্র উদ্দ্যার না করে তাহলে পার্বত্য অঞ্চল থেকে সাধারণ মানুষ মায়ানমার এর মত ভিন্ন দেশে পালিয়ে যাবে।

বক্তারা বলেন, সারাদিন সুষ্ঠু ভাবে নির্বাচন পরিচালনা করে যখন নির্বাচন কর্মকর্তারা নির্বাচনী সরঞ্জাম নিয়ে ফিরছিলেন তখনি পথিমধ্যে পার্বত্য আঞ্চলিক সন্ত্রাসীদের ব্রাশ ফায়ারের কবলে পরেন নির্বাচন কর্মকর্তারা। উক্ত ঘটনায় উদ্ধেগ জানিয়েছে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্রপরিষদ রাঙামাটি জেলা।

এ ঘটনার প্রতিবাদে গত কালেও রাঙ্গামাটি শহরে প্রতিবাদে সন্ধা ৭ ঘটিকার সময় বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্রপরিষদ রাঙামাটি জেলার নেতা-কর্মীরা।

বক্তারা আরো বলেন, এই নিন্দনীয় ঘটনার সাথে জড়িত উপজাতীয় সন্ত্রাসীদের দ্রুত চিহ্নিত করে গ্রেপ্তার পূর্বক বিচারের আওতায় আনার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে ৭২ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়েছে পার্বত্য বাঙালি ছাত্র পরিষদ অন্যথায় পার্বত্যবাসী কে সাথে নিয়ে কঠোর আন্দোলনের হুমকি দেন নেতারা।

পাহাড়ে একের পর এক সন্ত্রাসীদের হত্যাকান্ডে বাসের অযোগ্য হয়ে পরেছে পার্বত্য জনপদ। ইউপিডিএফ জেএসএস এর মতো সন্ত্রাসী সংগঠন গুলো সব সময় পার্বত্য এলাকাকে নৈরাজ্য পূর্ন এলাকায় পরিনত করেছে। তাই এসব সন্ত্রাসী অস্ত্রধারি সংগঠন গুলোকে নিষিদ্ধ করণ এর দাবী জানান ছাত্রপরিষদ নেতা কর্মিরা।এই ঘৃণ্য সন্ত্রাসী হামলায় নিহতদের জন্য শোক প্রকাশ করেন পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের।