॥ বান্দরবান প্রতিনিধি ॥

বান্দরবানের বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মনির আহম্মদ এর বিরুদ্ধে ধর্ষণ চেষ্টার ভিত্তিহীন ও দুরভিসন্ধিপূর্ণ মামলা দায়ের এর প্রতিবাদে ও নেপথ্যের ষড়যন্ত্রকারীদের চিহ্নিত করার দাবীতে সংবাদ সম্মেলন করেছে বীর মুক্তিযোদ্ধার পরিবারবর্গ।

শনিবার সকালে শহরের নিউ রূপসী বাংলা রেষ্টুরেন্টের কনফারেন্স রুমে এ সংবাদ সম্মেলন লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মনির আহম্মদ এর মেয়ে নাসরিন আক্তার।

এসময় সংবাদ সম্মেলনে মুক্তিযোদ্ধার সহধর্মীনি রওশন আরা বেগম, মেয়ে ফারজানা আক্তার মিলি,শারমিন আক্তার, কামরুন নেছা মুক্তা, ছেলে মোঃ মাহবুব করিমসহ সাংবাদিক ও প্রতিবেশিরা উপস্থিত ছিল।

এসময় সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান নাসরিন আক্তার তিনি বলেন গত ২মাস পূর্বে এক শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ এনে আমার বাবা বীর মুক্তিযোদ্ধা মনির আহম্মদ এর বিরুদ্ধে ১৯ নভেম্বর মনোয়ারা বেগম বাদী হয়ে মামলা দায়ের করে অথচ গত দুইমাস আগে আমার বাবা “বাইপাস সার্জারী”র জন্য ভারতের বেঙ্গালোরের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিল। সেখান থেকে আসার পর তিনি ভাল করে চলাফেরাও করতে পারত না।

আমাদের প্রতিবেশী আবদুর রহিম নামের এক ব্যক্তির সাথে আমাদের জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলছিল দীর্ঘদিন ধরে এ নিয়ে আমার বাবা তাদের বিরুদ্ধে একটি মামলাও দায়ের করেছিল। তারা অনেকবার সেই মামলা তুলে নেয়ার জন্য আমার বাবাকে চাপ সৃষ্টি করে কিন্তু আমার বাবা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে মামলা না তুলে আদালতের রায়ের অপেক্ষায় ছিলেন।

সেই ক্ষোভের বশবর্তী হয়ে মামলার আসামী পাশ্ববর্তী প্রতিবেশী রহিমসহ আরো কয়েকজন মামলার আসামী আমার বাবার সম্মান ক্ষুন্ন করার প্রচেষ্টায় কোমলমতি একটি শিশুকে দিয়ে মিথ্যা কথা শিখিয়ে তার মা আমাদের প্রতিপক্ষের সাথে হাত মিলিয়ে মামলা দায়ের করে। তাই আমরা

এ মিথ্যা অভিযোগের তদন্ত পূর্বক সত্য উদঘাটন করে একজন মুক্তি যোদ্ধার সম্মান ক্ষুন্ন করার অপপ্রচেষ্টায় দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী এবং আমার বাবার বিরুদ্ধে দায়ের করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবী জানাচ্ছি।

উল্লেখ্য, গত ১৯ নভেম্বর মনোয়রা বেগম নামে এক মহিলা তার শিশু কন্যাকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ এনে মুক্তিযোদ্ধা মনির আহম্মদ এর নামে মামলা দায়ের করে। পরে পুলিশ তাকে আটক করে। বর্তমানে তিনি অসুস্থ্য হওয়ায় পুলিশি প্রহরায় বান্দরবান সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।