স্টাফ রিপোর্টার । হিলরিপোর্ট

রাঙামাটি: রাঙামাটি পৌরসভা নির্বাচনে আ’লীগের (নৌকা প্রতীক) মেয়র প্রার্থী আকবর হোসেন চৌধুরী ভোট দিয়েছেন। রোববার (১৪ফেব্রুয়ারী) সকাল ৯টায় মুজাদ্দেদ -ই- আলফেসানী একাডেমী উচ্চ বিদ্যালয়ে তিনি ভোট প্রদান করেন।

ভোট প্রদান শেষে তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, প্রযুক্তির উন্নয়ন হয়েছে। মানুষ উৎসাহ উদ্দীপনা নিয়ে ভোট দিতে কেন্দ্রে আসছে। নতুন প্রযুক্তিতে ভোট দিতে পেরে তিনি খুশি।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি আরও বলেন, বিএনপি সব নির্বাচনে সব সময় অভিযোগ করেন। অভিয়োগ করা তাদের পেশা হয়ে দাঁড়িয়েছে। জয়ের ব্যাপারে তিনি শতভাগ আশাবাদী বলে জানান।

তিনি জানান, স্থানীয় জনগণ জানে আমি কি উন্নয়ন করেছি। নিজের সবটুকু ঢেলে কাজ করেছি মানুষের জন্য। আপাতত কারো বা কোন প্রার্থীর বিরুদ্ধে তার কোন অভিযোগ নেই বলে যোগ করেন ক্ষমতাশীন দলের এ মেয়র প্রার্থী।

নির্বাচরে মেয়র পদে প্রার্থী রয়েছেন ৫ জন। এর মধ্যে সরকার দলীয় আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আকবর হোসেন চৌধুরী, বিএনপি’র ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী অ্যাডভোকেট মামুনুর রশীদ মামুন, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী অমর কুমার দে মোবাইল প্রতীকে, জাতীয় পার্টির প্রজেশ চাকমা লাঙ্গল প্রতীকে ও বিপ্লবী ওর্য়াকাস পার্টির আব্দুল মান্নান রানা কোদাল প্রতীক নিয়ে লড়ছেন। এছাড়া সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৪১ জন এবং সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১৯জন প্রতিদ্বন্ধীতা করছেন।

রাঙামাটি পৌরসভার মোট ভোটার ৬২,৯১৩ জন। এর মধ্যে নারী ২৮৬৭১জন ও পুরুষ ৩৪২৫২ জন।

ভোটকেন্দ্রগুলোতে আইন শৃখলা রক্ষায় পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। প্রতিটি কেন্দ্রে আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় দায়িত্ব পালন করছে, পুলিশ, বিজিবি এবং র‌্যাপিট এ্যাকশন ব্যাটেলিয়ান (র‌্যাব)।

প্রতিটি কেন্দ্রে ৭ জন পুলিশ, ৯জন আনসার সদস্য সার্বক্ষণিকভাবে দায়িত্ব পালন করছেন। পাশাপাশি পুলিশের ১১টি মোবাইল টীম এবং ১১টি স্ট্রাইকিং ফোর্স নির্বাচনে যেকোন পরিস্থিতি মোকাবেলায় কাজ করছে। র‌্যাব ও বিজিবি’র সদস্যরাও পুরো শহরে টহল দিচ্ছে। নির্বাচন সুষ্ঠু ভাবে শেষ করতে ১২ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে দায়িত্ব দিয়েছেন জেলা প্রশাসন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এখনো শান্তিপূর্ণ ভাবে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। কোথাও কোন অপ্রীতিকর খবর পাওয়া যায়নি।