এস চৌধুরী । হিলরিপোর্ট

কাপ্তাই: এই মাঠের ঘাসের গন্ধ শরীরে শুকলে বোধ হয় এখনও পাওয়া যাবে।এই মাঠে ঢাকা আবাহনীর সালাউদ্দীন,টুটুল,চুন্নু,অমলেশ,নওজোয়ান এর জসিম,ফয়েজ,বাদার্সের সেলিম,ওয়াসিম, ইউসুফ বলী, নিতাই, পাকিস্হানী, সুভাষ ,ইলিয়াচ, জাফর উল্লা, ল্যান্ড কাষ্টমসের ছোট মন্জু, সি কাষ্টমসের এফ আই কামাল, লাতু, কাউসার বি এফ আই ডি সির রতন, হযরত আলী,স্ টীল মিলের অংসা, সন্তোষ, স্হানীয় খেলোয়ার রিটু, ছোট বাচ্চু, মিনু, ঝন্টু, হেলাল, বড় জামাল, শরীফ, প্রগতির বাবুল, অবকাশের নুরু ভাই, গিয়ার মন্জু, গুলজার পান্না, সামসু, নিংচাই, বাবুল, ইসমাইল, সাহান উদ্দীন,মানু, ইউনুচ ,নুরনবী, জীপু, বাচ্চু,সালে, কালো জামাল, সালাদ্দীন, সাপু, গ্লোন্ডেন বয় টিপু, ওয়াপদার ফরিদ, সজল, পূর্ণ পদ, কুণাল, আসদ্দর, তমিজ, ফজলু, কেপিএম এর বাদশা আলম, আসলাম, নুরনবী, প্রকাশ বড়ুয়াসহ আরও স্মরন নাই এমন অনেক নামী দামীদামী খেলোয়াড়ের পা পড়েছে।

প্রাক্তন জাতীয় টিমের কাপ্তাই এর গ্লোডেন বয় খ্যাত শাহাজ উদ্দীন টিপুর সহিত মুটো ফোনে এই প্রতিবেদকের কথা হয়।তিনি জানান কাপ্তাই এর ফুটবলের সংগঠক আলীনুর চাচা,গাজী চাচা,ফজলু কাকার মত ফুটবল অনুরাগী লোকের যথেস্ট অভাব রয়েছে।

চট্টগ্রাম বিভাগের ফুটবল কোর্চ কাপ্তাই এর সন্তান প্রাক্তন ফুটবলার শামসুদ্দীন এর সহিত কাপ্তাই মাঠ হইতে ফুটবলার তৈরি না হওয়া প্রসঙ্গে তিনি আশাবাদ ব্যাক্ত করেন যে আগামীতে তিনিরা কাপ্তাই মাঠ থেকে নবীন ফুটবলারদের কোচিং এর ব্যবস্হা করবেন নিজেই।তবে এই কাজে কাপ্তাই উপজেলা ক্রীড়া সংস্হার সহায়তা চেয়েছেন।

তবে এখানে স্মরন করবো কাপ্তাই এর খেলোয়ার গড়ার কারীগর স্বর্গীয় বাবু হরেন্দ্র লাল নন্দী স্যারকে।

এখন আর মাঠে পা পড়ে না কারো,সকলে ফেইজবুক নিয়ে ব্যাস্ত। গোচারন ক্ষেত্র হয়ে গিয়েছে এখন প্রকল্প বিদ্যালয়ের মাঠ।