বিশেষ প্রতিনিধি। হিলরিপোর্ট

কাপ্তাই: করোনা ভাইরাস সংক্রমন রোধে সরকারী বিধি নিষেধ মেনে কর্মহীন হয়ে মানুষ যখন গৃহ বন্দী হয়ে অসহায় হয়ে অর্ধাহারে অনাহারে দিন যাপন করছে তখনই মধ্যবৃত্তদের পাশে এসে দাড়ালেন প্রকৌশলী সুভাস চৌধুরী মানবতার বার্তা নিয়ে।

তিনি জানান, তিনি নিজেই মধ্যবৃত্ত পরিবারের সন্তান। তাই মধ্যবৃত্ত শব্দটি তিনি হাড়ে হাড়ে জানেন।তাই এ বছর ২৬ তম বিবাহ বার্ষিকী উদযাপন হচ্ছে সাদা মাটা ভাবে। অসহায় মানুষের উপহার সামগ্রী বিতরনের মাধ্যমে আয়োজন করলেন বিবাহ বার্ষিকী।এতে তার সহ ধর্মিনীর কোন রকম অমত নেই বলে উনি জানান।
১৯৯৪ এর ৫ জুন বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। বর্তমানে তিনি তিন কণ্যা সন্তানের জনক তিনি।

৪ ভাই বোনের মধ্যে সকলের ছোট তিনি।বর্তমানে কাপ্তাই বিদ্যুৎ সরবরাহে কর্মরত আছেন। প্রকৌশলীর অন্য তিন ভাই বোন বলেন, আমাদের ছোট ভাইটি আমাদের থেকে একটু ভিন্ন।পড়াশোনা, খেলাধুলা,সামাজিকতা এগুলো নিয়েই ব্যাস্ত থাকতো।
ছাত্র জীবনে এসে রাজনীতিতে প্রবেশ করেন তিনি।৯০ এর আন্দোলনে বলিস্ট ভূমিকা ছিল তার।

২৭ বছর চাকুরী জীবনে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডে বিফলতার খাতায় নাম উঠে নাই বলে জানান তিনি।তাহার আওতাধীন বিদ্যুৎ গ্রাহকদের সহিত আলাপ করে জানা যায়, তিনি অত্যান্ত দায়িত্বশীল একজন প্রকৌশলী।কেউ কেউ উনাকে অল রাউন্ডার বলে জানেন।
ইতিমধ্যেই তিনি মানবতার ফেরিওয়া, কল করলেই পৌঁছে যায় ত্রান সামগ্রী, অসহায়দের পাশে প্রকৌশলী সুভাষ চৌধুরী ইত্যাদি শিরোনাম হয়ে ভাইরাল হয়েছেন।

তিনি তার পরিবারের জন্য সকলের নিকট দোয়া,আর্শীবাদ প্রার্থনা করেছেন।