উপজেলা প্রতিনিধি । হিলরিপোর্ট

রাঙামাটি: রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলার দুর্গম রাইখালী ইউনিয়নে পৃথক পৃথক দুর্ঘটনায় পুকুর এবং নদীর পানিতে ডুবে তিন কিশোর-কিশোর মৃত্যু হয়েছে। শনিবার (১৯সেপ্টেম্বর) দিনব্যাপী এই দুর্ঘটনাগুলো ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সূত্রে জানানো হয়- শনিবার দুপুরে রাইখালী ইউনিয়ন বাজারের জামে মসজিদের পুকুরে মিজানুর রহমান (১২) নামের এক দিনমজুর কিশোর গোসল করতে নামে। দীর্ঘ সময় পার হওয়ার পর তাকে খুঁজে পাওয়া না গেলে স্থানীয়রা পুকুরে খোঁজা-খুঁজি শুরু করে। এরপরই বিকেলের দিকে কিশোরটিকে পুকুর থেকে উদ্ধার করে স্থানীয়রা চন্দ্রঘোনা খ্রিষ্টিয়ান মিশন হাসপাতালে ভর্তি করালে কর্তব্যরত চিকিৎসক কিশোরটিকে মৃত ঘোষণা করে। নিহত কিশোর একই উপজেলার চন্দ্রঘোনা ইউনিয়নের রেশম বাগান এলাকার এনামুল হকের ছেলে।

অপরদিকে একইদিন দুপুরে রাইখালী ইউনিয়নের পূর্বকোদালা খালে (নদী) মাকসুদা আক্তার (১২) এবং হাফসা আক্তার (১৩) নামের দুই কিশোরী পৃথক ভাবে গোসল করতে নামে। গোসল করতে গিয়ে বাড়ি না ফেরায় তাদের স্বজনরা খোঁজ নিতে শুরু করে। অবশেষে রাত সাড়ে ৮টার দিকে ডুবুরী দলের সাহায্য তাদের মৃত অবস্থায় নদী থেকে উদ্ধার করা হয়।

নিহত মাকসুদা রাইখালী ইউনিয়নের পূর্ব খন্তাকাটা এলাকার মফিজুর রহমানের মেয়ে এবং অপর নিহত হাফসা আক্তার এইক ইউনিয়নের জঙ্গল কোদালা বাজারের মহিবুল্লাহর মেয়ে।

চন্দ্রঘোনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল বাহার চৌধুরী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনাগুলো সত্যিই দু:খজনক। এই ঘটনায় থানায় তিনটি অপমৃত্যু (ইউডি) মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে যোগ করেন ওসি।

কাপ্তাই উপজেলার চেয়ারম্যান মো. মফিজুল হক বলেন,ঘটনাগুলো সত্যিই বেদনাদায়ক। প্রত্যোক মা-বাবার উচিত সন্তানদের প্রতি বেশি যতœবান হওয়া। যদি মা-বাবা সচেতন হয় তাহলে এই ধরণের অপমৃত্যু রোধ করা অনেকাংশে সম্ভব। এই সময় তিনি শোকার্ত পরিবারদের প্রতি সমবেদনা জানান।