॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥

বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী একুশে পদক প্রাপ্ত সাংস্কৃতিক সংগঠন বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী রাঙামাটি জেলা সংসদের উদ্যেগে একাদশ সত্যেন সেন গণসঙ্গীত প্রতিযোগিতা রাঙামাটিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে। মানুষ জাগাও,স্বদেশ জাগাও,বিশ্ব জাগাও সঙ্গীতে এ শ্লোগানকে ধারন করে ১৩মার্চ শুক্রবার সকালে রাঙামাটি শহরের রাণী দয়াময়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের হল রুমে জেলা পর্যায়ের এ গণসঙ্গীত প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

রাঙামাটির বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও উদীচীর বিভিন্ন শাখার শিল্পীরা এ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহন করেন।উদীচী জেলা সংসদেও সা: সম্পাদক বিজয় ধর এর সঞ্চালনায় প্রতিযোগিতার পুরস্কার ও সনদপত্র বিতরন অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বিশিষ্ট সাংবাদিক ও একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির রাঙামাটি জেলা সভাপতি সুনীল কান্তি দে।

উদীচী রাঙামাটি জেলা সংসদের সভাপতি অমলেন্দু হাওলাদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উদীচী রাঙামাটি জেলা সংসদের সহ-সভাপতি রনজিৎ পাটোয়ারী বাসু,যুগ্ন সাধারন সম্পাদক সাগর পাল, সুজন বড়–য়া ও মিন্টু বড়–য়া ।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, জন্মলগ্ন থেকে উদীচী অধিকার, স্বাধীনতা ও সাম্যের সমাজ নির্মাণের সংগ্রাম করে আসছে। উদীচী ’৬৮, ’৬৯, ’৭০, ’৭১, সালে বাঙালির সার্বিক মুক্তির চেতনাকে ধারণ করে গড়ে তোলে সাংস্কৃতিক সংগ্রাম।

এ সংগ্রাম গ্রাম বাংলার পথে ঘাটে ছড়িয়ে পড়ে। উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী এদেশে সুস্থ সাংস্কৃতিক ধারার সংস্কৃতি নির্মাণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। সত্যেন সেনের সৃষ্টিকর্ম ও সাহিত্য হলো সমাজ বাস্তবতার স্পষ্ট প্রকৃতি-স্বরূপের প্রতিচ্ছবি। তাঁর জীবনের সকল কিছুতেই মৌলিক বিষয় হিসেবে কাজ করেছে মানুষের জীবন-সংগ্রাম ও শ্রম-সভ্যতার ইতিহাস।

গণসঙ্গীত প্রতিযোগিতায় জেলা পর্যায়ে প্রথম ,দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান বিজয়ীরা এবং দলীয় সঙ্গীতে প্রথম ও দ্বিতীয় স্থান অধিকারকারীরা আগামী ২১ মার্চ রাঙামাটিতে অনুষ্ঠিতব্য বিভাগীয় গণসঙ্গীত প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহন করবেন।