স্টাফ রিপোর্টার । হিলরিপোর্ট

রাঙামাটি: গত দু’বছর করোনার কারণে সারাদেশের ন্যায় পাহাড়ি জেলা রাঙামাটিতে ঈদগাহে পবিত্র ঈদুল ফিতরের নামাজ অনুষ্ঠিত হয়নি। পড়তে হয়েছে মসজিদে। তবে এ বছর নিষেধাজ্ঞা না থাকায় ঈদগাহের পাশাপাশি মসজিদেও ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হবে। সেই লক্ষ্যে সবরকম ঈদ জামাতের প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে। কর্তৃপক্ষ ঈদের জামাত সুষ্ঠু ভাবে সম্পন্ন করতে সবরকম প্রস্তুতি শেষ করে ফেলেছে।

মাঠে প্যান্ডেল ঠাঙানো, পরিষ্কার-পরিছন্ন এবং সাজ-সজ্জার কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে।

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষ্যে রাঙামাটিতে পাঁচটি ঈদগাহে পবিত্র ঈদুল ফিতরের নামাজ অনুষ্ঠিত হবে। আবাহাওয়া প্রতিকূল থাকলে জেলা শহরের কোর্টবিল্ডিং এলাকার ঈদগাহে ঈদুল ফিতরের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টায় এবং ২য় জামাত হতে সকাল ৯টায়।

শহরের শহীদ আব্দুল শুক্কুর ঈদগাহে জামাত অনুুষ্ঠিত হবে সকাল ৯টায়। তবলছড়ি কেন্দ্রীয় ঈদগাহে সকাল ৮টায় এবং সকাল ৯টাসহ দু’টি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। পুরানপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ঈদগাহে সকাল ৮টায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। ভেদভেদী আমানতবাগ ঈদগাহে দু’টি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও স্থানীয়রা স্ব-স্ব মসজিদে ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করবে।

ইসলামিক ফাউন্ডেশন রাঙামাটি জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক ইকবাল বাহার চৌধুরী বলেন-রাঙামাটি ঈদের নামাজের প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে রাঙামাটির মসজিদগুলোর পাশাপাশি চারটি ঈদগাহে ঈদুল ফিতরের নামাজ অনুষ্ঠিত হবে।