স্টাফ রিপোর্টার । হিলরিপোর্ট

রাঙামাটি: রাঙামাটি সদর হাসপাতালে খুব শীঘ্রই স্থাপিত হতে যাচ্ছে সেন্ট্রাল অক্সিজেন সিষ্টেম। বুধবার (২২জুলাই) বিকেলে এমন তথ্য নিশ্চিত করেছেন, রাঙামাটি সিভিল সার্জন ডাক্তার বিপাশ খীসা। এইজন্য পার্বত্য জেলা পরিষদ থেকে ৫০ বেডের হাইফ্লো অক্সিজেনের জন্য ৫০লাখ টাকা বরাদ্ধ দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, রাঙামাটি সদর হাসপাতালে যতেষ্ট পরিমাণ অক্সিজেন সিলিন্ডার থাকলেও তীব্র শ্বাসকষ্টের রোগীদের জন্য রাঙামাটিতে এতদিন হাইফেøা অক্সিজেন ছিলো না।

এছাড়াও করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য হাইফ্লো অক্সিজেনের দরকার হয়। এতদিন অক্সিজেন না থাকায় শ্বাসকষ্টে ভোগা রোগীদের চট্টগ্রামে প্রেরণ করা হতো। এইবার সেই সমস্যার সমাধান হলো বলে সূত্রটি যোগ করেন। সূত্রটি জানায়- এখন শ্বাসকষ্টের রোগীরা এইবার রাঙামাটি সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে পারবে। পাশাপাশি করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য অক্সিজেন সেবাটা আর্শিবাদ হয়ে থাকবে।

রাঙামাটি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাকমা বলেন, করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় স্বাস্থ্য বিভাগের উন্নয়নে আগামী বাজেটে প্রয়োজনীয় বরাদ্দ রাখা হবে। একইসঙ্গে সংকটাপন্ন রোগীদের চিকিৎসার জন্য ৫০ বেডের হাইফ্লো অক্সিজেন ব্যবস্থা স্থাপনে জরুরী ভিত্তিতে ৫০ লক্ষ টাকা বরাদ্ধ দেওয়া হয়েছে বলে যোগ করেন।
চেয়ারম্যান বৃষকেতু আরও বলেন, স্বল্পতম সময়ে হাইফ্লো অক্সিজেন ব্যবস্থা স্থাপনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সিভিল সার্জনকে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। আশাকরি খুব অল্প সময়ের মধ্যে রোগীরা এই সেবা গ্রহণ করবে।

রাঙামাটি সিভিল সার্জন বিপাশ খীসা বলেন, রাঙামাটি সদর হাসপাতালে হাইফ্লো অক্সিজেন দ্রত সময়ের মধ্যে স্থাপনের জন্য যাচাই-বাছাইয়ের কাজ শুরু করা হয়েছে। কতদিন লাগবে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, হাইফ্লো অক্সিজেন স্থাপনের জন্য আমরা এখনো কোন সময় বেঁধে দিতে পারছি না। তবে যত দ্রুত করার দরকার তার সবটুকু দেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত: করোনা মোকাবিলায় রাঙামাটিবাসীর দীর্ঘদিনের প্রাণের ছিলো- রাঙামাটিতে পিসিআর ল্যাব এবং হাইফ্লো অক্সিজেন সিষ্টেম স্থাপন। দেশের সর্ববৃহৎ শিল্প প্রতিষ্ঠান বসুন্ধরা গ্রুফ পিসিআর ল্যাব স্থাপনের সকল খরচ দিয়ে রাঙামাটিবাসীর দাবি মিটিয়ে দিয়েছে। এইবার জেলা পরিষদের অর্থায়নে স্থাপতি হচ্ছে হাইফ্লো অক্সিজেন সিষ্টেম।