মঈন উদ্দীন বাপ্পী । হিলরিপোর্ট

রাঙামাটি: দীর্ঘ এক দশক পর নানান গুঞ্জন, বৈরি চ্যালেঞ্জ নিয়ে অবশেষে অত্যন্ত আড়ম্বর এবং উৎসব মুখর পরিবেশের মধ্যে দিয়ে কোন হট্টগোল ছাড়া দেশের সবচেয়ে প্রাচীন রাজনৈতিক দল রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগের কাঙ্খিত কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো।

কাউন্সিলে ফের রাজ্যর মসনদ ধরে রাখতে সক্ষম হলেন- পাহাড়ের দাদা খ্যাত খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি দীপংকর তালুকদার এমপি। পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি নিখিল কুমার চাকমা সকল পারিপার্শ্বকতা এবং দলীয় উচ্চ নেতাদের সিন্ধান্তকে সম্মান জানিয়ে সড়ে দাঁড়ালে দাদা দীপংকর বিনা প্রতিদ্বন্ধীতায় ফের সভাপতি পদে নির্বাচিত হন।

অপরদিকে নানান বঞ্চনা, নানান কলঙ্ক মাথায় নিয়ে জেলা আওয়ামীলীগের রাজ্যের ফের সিপাহসালার দায়িত্বে জয়ী হয়েছেন- জেলা আওয়ামীলীগের বিলুপ্ত কমিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক হাজী মুছা মাতব্বর। তিনি আওয়ামীলীগের বিলুপ্ত কমিটির সহ-সভাপতি হাজী কামালকে ১৩৬-১০২ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করে কাউন্সিলদের ভালবাসা নিয়ে বিজয়ীর মালা গলায় পড়েন।
মঙ্গলবার (২৪মে) দিনব্যাপী রাঙামাটি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠি ইন্সটিটিউট মাঠে দিনব্যাপী আওয়ামীলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সম্মেলনে উদ্বোধক ছিলেন-কেন্দ্রীয় আ.লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসেন এমপি। সম্মেলনে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথি ছিলেন-কেন্দ্রীয় আওয়ামলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি।

প্রথম অধিবেশনে রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি দীপংকর তালুকদার এমপি’র সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক হাজী মুছা মাতব্বর’র পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন-কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব- উল- আলম হানিফ এমপি,

সম্মেলনে প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন- কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি, বিশেষ বক্তার বক্তব্য রাখেন- কেন্দ্রীয় আওয়ামলীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, অর্থ ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক ওয়াসিকা আয়েশা খান এমপি, উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আলহাজ¦ আমিনুল ইসলাম।

উদ্ধোধনের শুরুতে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য প্রদান এবং ১৫আগষ্ট নিহত জাতির পিতা ও তার পরিবারবর্গ এবং স্বাধীনতার সকল শহীদদের প্রতি বিন¤্র শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। সম্মেলনে জেলা, উপজেলা মিলে ২৪৬জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন।