॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥

রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার সারোয়াতলী ইউনিয়নের পাকুয়াখালী নাম স্থানে লংগদু উপজেলার ৩৫ কাঠুরয়িা হত্যার বিচারের দাবীতে লংগদুতে শোক সভা, গণকবর জিয়ারত ও শোক র‌্যালী অনুষ্টিত হয়েছে। মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টার দিকে উপজেলা সদর মিলনায়তনে র্পাবত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের উদ্যোগে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, ১৯৯৬ সালে রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার পাকুয়াখালীর গহীন অরণ্যে তৎকালীন শান্তিবাহিনীর হাতে নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়ে প্রাণ হারায় ৩৫ নিরীহ বাঙ্গালী কাঠুরিয়া। কিন্তু ২৩ বছর পার হলওে র্ববর এ হত্যাকান্ডের এখনো বিচার পায়নি তাদের স্বজনরা। তাই র্পাবত্যাঞ্চলে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য পাকুয়াখালী গণহত্যাসহ সকল হত্যাকান্ডরে তদন্তের প্রতবিদেন প্রকাশ করে বিচার প্রক্রিয়া দ্রুত শুরু করার দাবী জানান। তা না হলে র্পাবত্যাঞ্চলে শান্তি প্রতিষ্ঠার আশা কোনদিনই সফল হবে না বলে বক্তারা হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করেন।

এর আগে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তন থেকে একটি মৌন শোক মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি উপজেলা শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে পুনরায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এসে মিলিত হয়।

সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, লংগদু উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল বারেক সরকার। অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন, অধ্যক্ষ আবু তাহের।

পার্বত্য বাঙালী ছাত্র পরিষদ লংগদু উপজেলা শাখার সভাপতি আনোয়ার হোসেন’র সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন, লংগদু উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান তোফাজ্জেল হোসেন, বাঘাইছড়ি উপজেলার ভাইস চেয়াম্যান আব্দুল কায়ুম, গুলশাখালী ইউপি চেয়ারম্যান আবু নাছির, লংগদু উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মাও:নাছির উদ্দীন, পার্বত্য বাঙালী ছাত্র পরিষদ রাঙামাটি জেলা শাখার সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, সংগঠনটির খাগড়াছড়ি জেলার সাবেক সভাপতি লোকমান হোসেন, সম-অধিকার লংগদু উপজেলার সভাপতি মো. খলিলুর রহমান খান, পার্বত্য বাঙালী ছাত্র পরিষদ খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সভাপতি আসাদুজ্জামান, সংগঠনটির রাঙামাটি শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আল মোমিন, ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্য সাখাওয়াত হোসেন এবং বেচেঁ থাকা একমাত্র কাঠুরিয়া মো. ইউনুছ প্রমুখ।