॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥

সকলের সর্বাত্বক প্রচেষ্টায় দেশকে ম্যালেরিয়া মুক্ত করা সম্ভব বলে মন্তব্য করেছেন রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা। তিনি বলেন, সরকারের সঙ্গে ব্র্যাক ও অন্যান্য এনজিওগুলো ম্যালেরিয়া কর্মসূচিতে কাজ করছে বলে রাঙামাটিতে ম্যালেরিয়া আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা অনেক কমেছে। সরকারের পাশাপাশি এ সাফল্যের ভাগীদার তারাও।

রোববার সকালে জাতীয় ম্যালেরিয়া নির্মূল কর্মসূচি, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ ও ব্র্যাকের আয়োজনে রাঙামাটির মগবান ইউনিয়নের বড়গাঙ বাজারে বিভিন্ন এলাকার পরিবারদের মাঝে তিন শতাধিক কীটনাশকযুক্ত দীর্ঘস্থায়ী মশারি (এলএলআইএন) বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চেয়ারম্যান এসব কথা বলেন।

সিভিল সার্জন ডাঃ বিপাশ খীসার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্যে রাখেন, মগবান ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিশ^জিৎ চাকমা, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ বিনোদ শেখর চাকমা, ব্র্যাক এর সিনিয়র মেডিকেল অফিসার ডাঃ কেতি চাকমা ও ব্র্যাক এর জেলা ব্যাবস্থাপক দেবময় চাকমা প্রমূখ।

অনুষ্ঠানে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে বেশি বৃষ্টিপাত, বন নিধনসহ আরও কিছু কারণে পাহাড়ি অঞ্চলে মশার উপদ্রব বেশি। তাই স্বাস্থ্যকর্মীদের কাজে আরও গতিশীলতা আনতে হবে। এ জন্য সরকারি-বেসরকারি সেবাকর্মীদের অবশ্যই দুর্গম অঞ্চলে পৌঁছাতে হবে এবং মশা নিরোধক ওষুধের ব্যবহার ও কীটনাশকযুক্ত মশারি ব্যাবহার করার বিষয়টি বিশেষভাবে গুরুত্বসহকারে তাদের বোঝাতে হবে।

তিনি আরো বলেন, ম্যালেরিয়া নিয়ন্ত্রণ ইস্যুতে মিডিয়ার পাশাপাশি সমাজের শিক্ষক, ধর্মীয় গুরু, ইমাম, সুশীল ব্যক্তিবর্গ ও স্থানীয় প্রশাসনকে গণসচেতনতা বাড়াতে হবে। এক কথায়, ম্যালেরিয়া নিয়ন্ত্রণে সফল হতে চাই সংশ্লিষ্ট সবপক্ষের সমন্বিত উদ্যোগ।