॥ আবু নাছের, বাঘাইছড়ি ॥

 সন্ত্রাসবাদ মূলৎপাঠনে পাহাড়ে সেনা ক্যাম্প পুণ:স্থাপনের হুঁশিয়ারী প্রদান করেছেন চট্টগ্রাম ডিভিশনের জিওসি মতিউর রহমান । তিনি বলেন, সন্ত্রাস কারও জন্য আর্শিবাদ নয়, অভিশাপ। বুধবার (২৭মার্চ) দুপুরে মারিশ্যা ২৭বিজিবি জোনে বাঘাইছড়িতে নির্বাচনী কাজে নিহতদের পরিবারের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

জিওসি আরও বলেন, গত ১৮ই মার্চ ঘটনাটি শুধু পার্বত্য অঞ্চলের জন্য নয়, পুরো জাতির জন্য একটা কালো অধ্যায়। কারা ঘটনা ঘটিয়েছে আমাদের কাছে তথ্য রয়েছে। আমরা প্রকৃত আসামীদের ধরার চেষ্টা করছি।

জিওসি জানান, আসামীরা যত শক্তিশালী হোক না কেন; তারা যদি ১০০হাত মাটির নিচে লুকিয়ে থাকে সেখান থেকে তাদের খুঁজে বের করা হবে।

এর আগে মতবিনিময় সভায় যোগদানের পূর্বে জিওসি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ওই এলাকায় হামলার কারণ চিহ্নিত করেছেন।

  • Facebook
  • Twitter
  • Print Friendly

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন, চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার আবদুল মান্নান, চট্টগ্রাম রেঞ্জের পুলিশ প্রধান মোঃ খন্দকার গোলাম ফারুক পিপিএম, বিপিএম, চট্টগ্রাম রেঞ্জের আনসার ভিডিপির ডি ডি জি মোঃ সাসছুল আলম, খাগড়াছড়ি ২০৩ ব্রিগ্রেড কমান্ডার, মোঃ হামিদুল হক, রাঙামাটি জেলা প্রশাসক (ডিসি) একেএম মামুনুর রশীদ, রাঙামাটি পুলিশ সুপার আলমগীর কবিরসহ স্থানীয় প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাগণ।

মতবিনিময় সভার পর চট্টগ্রাম ২৪পদাধিক ডিভিশনের পক্ষ থেকে বাঘাইছড়িতে নির্বাচনী কাজে নিহত ৭জনের প্রত্যেক পরিবারকে ৫০হাজার টাকা করে তোলে দেন জিওসি।

গত ১৮মার্চ নির্বাচনী কর্মকর্তাগণ নির্বাচনী কাজ শেষে করে বাঘাইছড়ি সদরে ফিরে আসার সময় একদল সন্ত্রাসী পূর্বপরিকল্পিত গুলি করে হামলা চালিয়ে ৭জনকে হত্যা করে। এ ঘটনায় বাঘাইছড়ি থানায় অজ্ঞাত ৫০জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে পুলিশ।