॥ স্টাফ রিপোর্টার ॥

রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলায় ভোট গ্রহন শেষে নির্বাচনী সরঞ্জাম নিয়ে ফেরার পথে বাঘাইছড়ির নয় মাইল এলাকায় পার্বত্য আঞ্চলিক সন্ত্রাসী সংগঠনের ব্রাশ ফায়ারে প্রিসাইডিং কর্মকর্তাসহ নিহত ৮ এবং ২০ এর অধিক আহত হওয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্রপরিষদ রাঙামাটি জেলা শাখার সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম।

সারাদিন সুষ্ঠু ভাবে নির্বাচন পরিচালনা করে যখন নির্বাচন কর্মকর্তারা নির্বাচনী সরঞ্জাম নিয়ে ফিরছিলেন তখনি পথি মধ্যে পার্বত্য আঞ্চলিক সন্ত্রাসীদের ব্রাস ফায়ারের কবলে পরেন নির্বাচন কর্মকর্তারা। উক্ত ঘটনায় উদ্ধেগ জানিয়েছে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্রপরিষদ রাঙ্গামাটি জেলা।

রাঙামাটি সহরে এই ঘৃণ্য ঘটনার প্রতিবাদে সন্ধায় ৭ ঘটিকার সময় বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্রপরিষদ রাঙামাটি জেলার নেতা-কর্মীরা।

জেলা সভাপতি জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে এসম উপস্থিত ছিলেন, পিবিসিপির জেলা সাধারন সম্পাদক আব্দুল মান্নান জেলা সদস্য মোঃ জাবেদ নাগরিক পরিষদের জেলা সদস্য সচিব ছগির আহম্মদ কৃষি ডিপ্লোমা কমিটির সভাপতি আবু নাঈম সহ অসখ্য নেতৃবৃন্দ।

বক্তারা বলেন, এই নিন্দনিয় ঘটনার সাথে জড়িত সন্ত্রাসীদের দ্রুত চিহ্নিত করে গ্রেপ্তার পূর্বক বিচারের আওতায় আনার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীরকে ৪৮ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়েছে পার্বত্য বাঙালি ছাত্র পরিষদ অন্যথায় পার্বত্যবাসী কে সাথে নিয়ে কঠোর আন্দোলনের হুমকি দেন নেতারা।

পাহাড়ে একের পর এক সন্ত্রাসীদের হত্যাকান্ডে বাসের অযোগ্য হয়ে পরেছে পার্বত্য জনপদ। ইউপিডিএফ জেএসএস এর মতো সন্ত্রাসী সংগঠন গুলো সব সময় পার্বত্য এলাকাকে নৈরাজ্য পূর্ন এলাকায় পরিনত করেছে। তাই এসব সন্ত্রাসী অস্ত্রধারি সংগঠন গুলোকে নিষিদ্ধ করণ এর দাবী জানান ছাত্রপরিষদ নেতা কর্মিরা। এই ঘৃণ্য সন্ত্রাসী হামলায় নিহতদের জন্য শোক প্রকাশ করেন পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদ।