॥ মঈন উদ্দীন বাপ্পী ॥

রাঙামাটি: রাঙামাটিতে আঞ্চলিক দলগুলোর মধ্যে সম্প্রতিকালে হত্যা, খুন, আধিপত্য বিস্তারসহ আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতিসহ সন্ত্রাসী হামলার ভয়ে মারমাদের ঐতিহ্যবাহী সামাজিক জলকেলি উৎসব ‘সাংগ্রাই জলোউৎসব’ বাতিল করেছে মারমা সংস্কৃতি সংস্থা (মাসস)। গোষ্ঠিটির সাধারণ সম্পাদক মংউচিং মারমা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মংউচিং বলেন, প্রতিবছর পরিস্থিতি ভাল থাকলেও এ বছর পাহাড়ের পরিস্থিতি ভাল নেই। চারদিক খুন, হত্যাসহ নানা পরিস্থিতি আমাদের চিন্তায় ফেলেছে। সার্বিক পরিস্থিতি চিন্তা করে নিরাপত্তার খাতিলে এ বছর ‘সাংগ্রাই জলোউৎসব’ বাতিল করতে বাধ্য হয়েছি।

তিনি আরও বলেন, বিশেষ করে সাম্প্রতিক সময়ে বাঘাইছড়ি ও বিলাইছড়ি উপজেলায় বড় ধরণের হত্যাকান্ড এবং আমাদের সংস্থার সভাপতিসহ সংশ্লিষ্ট সদস্যদের সন্ত্রাসী কর্তৃক প্রতিনিয়ত হুমকিতে এ অনুষ্ঠান পালন থেকে সরে এসেছি।

রাঙামাটি পুলিশ সুপার আলমগীর কবির জানান, আমাকে এ বিষয়টি সম্পর্কে কেউ অবগত করিনি। অবগত করা হলে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আগামী ১৪ এপ্রিল পহেলা বৈশাখ বা বাংলা নববর্ষ পালন করা হবে। প্রত্যেক সময় এই নতুন বছরকে বরণ করতে পাহাড়ী সম্প্রদায়ের মানুষ নিজ নিজ সম্প্রদায়ের নিয়মে নানা অনুষ্ঠান পালন করে থাকে।

নতুন বছরকে ঘিরে পাহাড়িরা ঘরে ঘরে নানা রকম সুস্বাদু খাবার তৈরি করে। এসব খাবারের মধ্যে সবচেয়ে সুস্বাদু খাবার হচ্ছে ‘পাজন’। এসময় পাহাড় যেন নতুন রূপে সাজে বাহারি ঢঙে।

পাহাড়ে অন্যান্য সম্প্রদায়ের মত মারমা সম্প্রদায়ের তরুণ-তরুণীরা পুরনো বছরে সকল দু:খ-কষ্ট ভুলে নববর্ষের ২য় দিন একে অপরকে পানি ছিটিয়ে জল উৎসবে মেতে উঠে। ঐতিহ্যবাহী এ সামাজিক উৎসব পাহাড়ে ‘জলকেলি বা জল উৎসব’ নামে বেশ পরিচিত।