॥ জিয়াউল হক রাসেল, কাপ্তাই ॥

রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলায় সুইডেন পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটে শিফট চালুর দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। রোববার (১৬ ফেব্রুয়ারী) সকালে প্রতিষ্ঠানটির ক্যাম্পাসে এ বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়। সারাদেশের এ প্রতিষ্ঠানগুলোতে একযোগে আন্দোলন চলছে।

বিক্ষোভে শিক্ষার্থীদের দাবি জানিয়ে বলেন, কারিগরি শিক্ষাবোর্ড এর আওতায় ৪৯টি সরকারি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট রয়েছে। এর মধ্যে প্রতিটি ইন্সটিটিউউটে ২টি শিফট চালু রাখার নিয়ম আছে। কিন্তু সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষরা একটি শিফট চালু রাখলেও ২য় শিফট চালু রাখার জন্য কোন উদ্যোগ নিচ্ছে না দীর্ঘ বছর ধরে।

বিক্ষোভে প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষকরা জানান, যতক্ষন পর্যন্ত আমাদের ন্যয্য অধিকার বাস্তবায়িত হবে না ততক্ষন পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন অব্যাহত রাখা হবে।

এদিকে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা সরকারের কাছে ৭টি দাবি তুলে ধরেন। দাবিগুলো হলো-

১. ২য় শিফট এর ক্লাস পুনরায় ফিরে পাওয়া
২. ১ম শিফট এর মতো ২য় শিফট এর সুযোগ – সুবিধা বৃদ্ধি
৩. ২য় শিফট নিয়ে ভবিষ্যতে কোন প্রকার বৈষম্য না থাকা
৪. ১ম শিফট এর ন্যয় ২য় শিফটের ক্লাস যথাযত নিয়মে শুরু হওয়া
৫. অবিলম্বে পর্যাপ্ত শিক্ষক নিয়োগ দিতে হবে
৬.ব্যবহারিক সামগ্রী শিক্ষার্থী তুলনায় কম তাই শিক্ষার্থী অনুযায়ী ব্যবহারিক সামগ্রি বাড়াতে হবে
৭. শিক্ষার্থী তুলনায় ল্যাব, ক্লাসরুম কম সুতরাং এগুলোর সুব্যবস্থা করতে হবে।

জানা গেছে, ১৯৮৩ সাল থেকে চালু হওয়া দু’টি শিফট একটি যুগপযোগী ছিলো। যা পরবর্তী সময়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপের কারণে আরো প্রসারিত ঘটে।

২য় শিফট প্রোগ্রামটি দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে অবদান রেখে চলেছে। শিক্ষক- কর্মচারীগন দেশের স্বর্থে মূলবেতনের ৫০% এর বিনিময়ে শিক্ষা কার্যক্রমটি পরিচালনা করে আসছিলো। যদিও ২০১২ সনে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক উচ্চ পর্যায়ে কমিটি ৭৫% প্রদানের সুপারিশ করেন। এ বিষয়ে বিগত ১৯ মাসে শিক্ষামšী¿-উপমন্ত্রীসহ সচিব এর সাথে একাদিকবার আলোচনা করা হয় এবং ২য় শিফট এর পারিশ্রমিক নায্য অধিকার একমত পোষণ করেন এবং বাস্তবায়নে আশ্বাস দেন।