॥ খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি ॥

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি বলেছেন, হত্যার বদলে হত্যা নয়,বন্দুকছাড়াও বড় সমস্যার সমাধান করা যায়। “মুজিব বর্ষের অঙ্গীকার প্রথাগত প্রতিষ্ঠানের সেবা হবে জনতার” এই শ্লোগানে বুধবার সকালে খাগড়াছড়ি পৌর টাউন হলে অনুষ্ঠিত পার্বত্য চট্টগ্রাম হেডম্যান সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় তিনি আরো বলেন, তার প্রমান আওয়ামীলীগ সরকার ১৯৯৭ সালের ২ ডিসেম্বর পার্বত্য চুক্তির মাধ্যমে প্রমাণ করেছেন বলে মন্তব্য করে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পার্বত্য চট্টগ্রামে মায়ের ভূমিকা পালন করেছে। সদস্যা যেমন আছে তেমনি সমাধানও আছে। তাই সকলে কাঁদে কাঁদ মিলিয়ে হাতে হাত মিলিয়ে কাজ করলে উন্নয়ন,অগ্রগতি,সম্প্রীতির মাধ্যমে এদেশ এগিয়ে যাবে।

সিএইচটি হেডম্যান নেটওয়ার্ক’র আয়োজিত এ সম্মেলনের উদ্বোধন করেন উপজাতীয় শরনার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্সের চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি। সিএইসটি হেডম্যান নেটওয়ার্ক’র সভাপতি ও খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরীর সভাপতিত্বে এতে সম্মেলনে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, সিএইচটি হেডম্যান নেটওয়ার্ক’র সাধারণ সম্পাদক শান্তি বিজয় চাকমা।

এ সময় মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি, পুরনো ইতিহাস টেনে উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে বলেন, যারা সমাজকে টিকিয়ে রাখার জন্য কাজ করে যাচ্ছে তাদের প্রতি সকলকে আন্তরিক করতে হবে। হেডম্যান ও কার্বারিরা হলেন পাহাড়ের প্রাণ। তারা ক্ষুদ্র থেকে বৃহৎ সমস্যার সমাধানের ফলে পাহাড়কে গতিশীল রেখেছে। ফলে আদালতে বিচার কার্য্যরে সংখ্যাও কমেছে। তাই ঐতিহ্যবাহী এই প্রথাকে শক্তিশালী করতে সরকার সব ধরনের কার্যকর উদ্যোগ নিচ্ছে বলে তিনি জানান।

এ সময় তিনি সকল হেডম্যান-কার্বারিদের কার্যালয় ও প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা করাসহ বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের প্রতিশ্রুতি দিয়ে নগদ ২ লক্ষ টাকা ও ১০ লক্ষ টাকার কল্যাণ তহবিল গঠনের ঘোষনা দেন। তিনি আরো বলেন, ৩ পার্বত্য জেলার হেডম্যান-কার্বারীদের সংগঠনকে শক্তিশালী করতে সমস্যা,সম্ভাবনা ও করণীয় নিয়ে যথাযথ ভাবে উদ্যোগ নিয়ে প্রশাসন প্রথাগত আইন-কানুন অনুসরণ করে আরো শক্তিশালী করার মধ্য দিয়ে দেশপ্রেম ও সকল মানুষের জন্য কাজ করার আহবান জানান।

হেডম্যান এসোসিয়েশনের সাংগঠনিক সম্পাদক হিরন জয় ত্রিপুরার সঞ্চালনায় সংরক্ষিত আসনের এমপি বাসন্তী চাকমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের সচিব মোঃ মেসবাহুল ইসলাম, চাকমা সার্কেল ব্যারিস্টার রাজা দেবাশীষ রায়, মং সার্কেল রাজা সাচিংপ্রু চৌধুরী, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আবদুল আজিজ, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট খোন্দকার মোহাম্মদ রিয়াজুল করিম, পৌর মেয়র রফিকুল আলম, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শানে আলম, এএলআরডি এর উপ-নির্বাহী পরিচালক রওশন জাহান মনি প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।

এর আগে সকালে পৌর টাউন হল থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী শহরের প্রধান সড়ক পদক্ষিন করে টাউন হলে এসে সম্মেলনে মিলিত হয়। পরে সম্মেলনে প্রধান অতিথি ২০২০-২৩ মেয়াদকালের জন্য ২১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটির সভাপতি কংজরী চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক শান্তি বিজয় চাকমার কেন্দ্রীয় কমিটি ও খাগড়াছড়ি জেলা কমিটি ঘোষনা করেন।