এস চৌধুরী । হিলরিপোর্ট

কাপ্তাই: চারটি দলে বিভক্ত পাহাড়ের আঞ্চলিক দলগুলো।একটাই উদ্দেশ্য আধিপত্য বিস্তার,চাঁদাবাজি,হত্যা।

এই প্রতিবেদকের সাথে তিনটি আঞ্চলিক দলের সক্রিয় অস্ত্রদারী সদস্যদের সাথে সরাসরি কথা হয়। অস্ত্রের যোগানদাতা, সদস্য সংগ্রহ, টাকার উৎস, তাদের মুল উদ্দ্যেশ্য ।

নিজেদের মধ্যে রক্তক্ষয়ী এক সংঘর্ষে লিপ্ত এখন। আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুই দলের মুখামুখি সংঘর্ষ চলছে । ভারী অস্ত্রে সজ্জিত জলপাই কালারের পোষাক পরিহিত উভয়েই। কখনো সেনাবাহিনীর পোশাক, আর্মস ব্যাটালিয়নের পোশাক।

তিন দলের সামরিক শাখার পরিচালকের সহিত এই প্রতিবেদকের মতবিনিময় হয়েছে।সকলের একটাই উদ্দেশ্য পাহাড়ে স্বায়ত্ব শাসন চায়। একটা স্বাধীন ভূখন্ড তৈরি করা।

তাদের এমন পুরণ হওয়া আদৌই কি সম্ভব?প্রশ্ন প্রশ্নই থেকে গেল। অনেক মেধাবী, সুদর্শন যুবক রয়েছে এই আঞ্চলিক দলগুলোতে। তাদের মেধা, জ্ঞান সৃজনশীলতাকে কাজে না লাগিয়ে দেশবিরোধী কাজে লিপ্ত হচ্ছে। আসলে এর শেষ কোথায়?